তাইওয়ানকে গণতান্ত্রিক সম্মেলনে ডেকে ‘ভুল’ করেছে যুক্তরাষ্ট্র: চীন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন গণতান্ত্রিক সম্মেলনে অংশ নেওয়ার জন্য তাইওয়ানকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্ত ‘ভুল’ বলে অভিযোগ করেছে চীন। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে সম্মেলনে আমন্ত্রণ পাওয়া দেশগুলোর তালিকা প্রকাশ করা হয়। এতে অংশ নিচ্ছে আরও ১০৯টি দেশ।

স্থানীয় সময় বুধবার (২৪ নভেম্বর) চীনের তাইওয়ানবিষয়ক মুখপাত্র ঝু ফেংলিয়ান বলেন, তাইওয়ানকে এই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা ‘ভুল’ এবং বেইজিং বিরোধী সিদ্ধান্ত।

তিনি আরও বলেন, আমাদের অবস্থান স্পষ্ট এবং সামঞ্জস্যপূর্ণ। আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে ‘এক চীন’ নীতি এবং তিনটি যৌথ ঘোষণায় অটল থাকার আহ্বান জানাই।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের নির্বাচনী প্রচারণার প্রতিশ্রুতি রক্ষায় স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক কৌশলের অংশ হিসেবে এই সম্মেলনের ডাক দেওয়া হয়েছে। আগামী ৯ ও ১০ ডিসেম্বর ভার্চুয়ালি এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তবে সম্মেলন থেকে বাদ পড়েছে চীন।

তাইওয়ান নিজেকে স্বতন্ত্র দাবি করলেও বেইজিং তাইওয়ানকে নিজেদের অংশ মনে করে। তাইওয়ান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এর আগে স্থানীয় সময় সোমবার (১৫ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠকে তাইওয়ান ইস্যুতে চীনের প্রেসিডেন্ট বলেন, তাইওয়ানের স্বাধীনতায় উৎসাহ দেওয়া ‘আগুন নিয়ে খেলা’র মতো।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এর আগেও তাইওয়ানকে একত্র করার ঘোষণা দিয়েছেন। যদিও সেসময় তাইওয়ানের নেতারা এর কড়া জবাব দিয়েছিলেন। অন্যদিকে, তাইওয়ানকে আক্রমণ করলে যথাযথ জবাব দেওয়ার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া দক্ষিণ চীন সাগর, হংকং ও জিনজিয়াং প্রদেশের ইস্যু নিয়েও ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে দীর্ঘদিন ধরে।