গোলহীন মেসি-নেইমার, তবুও চ্যাম্পিয়নদের হারালো পিএসজি

অসুস্থতার কারণে স্কোয়াডেই ছিলেন না কাইলিয়ান এমবাপে। গোল পেলেন না দলের অন্য দুই তারকা লিওনেল মেসি এবং নেইমারও। তারপরেও ফরাসি লিগ ওয়ানের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন লিলেকে ২-১ গোলে হারালো পিএসজি।

গতকাল পার্ক দে প্রিন্সেসে শুরু থেকেই জমে ওঠে লিগের শীর্ষ সারির এই দুই দলের লড়াই। কিন্তু ফিনিশিং দুর্বলতায় গোল পাচ্ছিল না কোনো পক্ষ। তবে ম্যাচের আধঘণ্টা পার হতেই অতিথি শিবিরের ঝলক। লিলে তারকা বুরাক ইলমাজের বাড়ানো বল স্রেফ দুর্দান্ত প্লেসমেন্টে পিএসজির জালে পাঠান জোনাথন ডেভিড।

প্রথমার্ধে গোল হয় ওই একটি। আর ডেভিডের করা সেই গোলেই টানা তৃতীয়বার পিএসজির বিপক্ষে জয়ের স্বপ্ন দেখছিল লিল। অতিথি দলের আশা পালে জোর হাওয়া দেয় মেসির চোট। মাংশপেশীতে টান লাগায় পিএসজি কোচ মরিসিও পচেত্তিনো মেসিকে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠেই নামাননি।

তারপরও কিন্তু হাল ছাড়েনি প্যারিসিয়ানরা। শেষ ৩০ মিনিট একের পর এক আক্রমণে তারা ব্যতিব্যস্ত করে তোলে অতিথি দলের রক্ষণভাগ। ফলটাও পায় হাতেনাতে। ৭৪ মিনিটে ডি বক্সের বাঁ প্রান্ত থেকে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার দুর্দান্ত এক চিপ, উড়ন্ত শটে লিলের জালে পাঠান পিএসজির ডিফেন্ডার ও অধিনায়ক মার্কুইনহোস।

পিএসজির জয়সূচক গোলটি আসে ৮৮ মিনিটে।, নেইমার-ডি মারিয়ার যুগলবন্দীতে। নির্ধারিত সময়ের মিনিট দুয়েক আগে ডি বক্সে থাকা নেইমারের সঙ্গে বল-নেয়া ডি মারিয়ার, এরপর লিলের ডিফেন্ডাররা কিছু বুঝে ওঠার আগে এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের নেয়া বাঁ পায়ের শট খুঁজে নেয় জাল। যে গোলেই শেষ পর্যন্ত তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে পিএসজি।

এ জয়ে লিগ ওয়ানের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান আরও পোক্ত করলো পিএসজি। ১২ ম্যাচ শেষ ৩১ পয়েন্ট দলটির ঝুলিতে। এক ম্যাচ কম খেলে দুইয়ে থাকা লেন্সের সঙ্গে তাদের পয়েন্টের ব্যবধান ১০। ওদিকে, বর্তমান চ্যাম্পিয়ন লিলে এই হারে নেমে গেছে ১১ নম্বরে। ১২ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট মাত্র ১৫।