২০২২ বিশ্বকাপই শেষ নেইমারের, শোনালেন কান্নার গল্পও

বয়স মাত্র ২৯। আগামী বিশ্বকাপের পর ছোঁবেন ত্রিশের ঘর। আর এই সময়টাতেই কিনা বিদায় নিয়ে নেবেন নেইমার? ব্রাজিলিয়ান ফুটবল তারকা দিলেন এমনই ইঙ্গিতই। জানালেন, কাতারে ২০২২ বিশ্বকাপই হতে পারে তার ক্যারিয়ারের শেষ।

কেন এমন ভাবনা? নেইমার জানালেন, শারীরিক নয়, মানসিক কারণেই হয়তো বিদায়টা বদলে দিতে হতে পারে তার। ‘ডাজন’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পিএসজি ফরোয়ার্ড বলেন, ‘মনে হয় ২০২২ সালে কাতারেই আমার শেষ বিশ্বকাপ। কারণ আমি আসলে জানি না, (এরপর) ফুটবলটা চালিয়ে যাওয়ার মতো মানসিক দৃঢ়তা থাকবে কি না।’

দেশের হয়ে ওই বিশ্বকাপটা জেতার জন্য নিজেকে উজাড় করে দেবেন নেইমার। তার কথা, ‘সেখানে ভালো কিছু পেতে আমি সবটুকু ঢেলে দেবো। আমি দেশের হয়ে জিততে চাই। ছেলেবেলা থেকে যে স্বপ্ন লালন করেছি, সেটি পূরণ করতে চাই। আশা করি আমি সেটা পারব।’

‘নেইমার জুনিয়র দিনাস্তিয়া দে রেয়েস’ ডকুমেন্টারিতে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড জানিয়েছেন, তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন অভিজ্ঞতার স্মৃতিও। ২০১৪ বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের অযাচিত আঘাতে মেরুদণ্ডে যে চোট পেয়েছিলেন, কান্না ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না তার।

নেইমার বলেন, ‘আমার ক্যারিয়ারে অন্যতম বাজে মুহূর্ত সেটা। বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্নটাই ভেঙে দিয়েছিল সেই চোট। সেমিফাইনাল, ফাইনাল…আমি পা নড়াতে পারছিলাম। কান্না ধরে রাখতে পারছিলাম না কিছুতেই।’

ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার যোগ করেন, ‘তারা আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়, পরীক্ষা করা হয়। ডাক্তার আমাকে বলেছিল-তোমার জন্য দুটি খবর আছে- একটি ভালো, আরেকটি খারাপ। তুমি কোনটি শুনতে চাও? আমি বলেছিলাম, খারাপটাই বলুন।’

‘তিনি (চিকিৎসক) বলেন-তুমি বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছো। কাঁদতে কাঁদতে আমি জিজ্ঞেস করেছিলাম-ভালো খবরটা কী? তিনি আমাকে বলেন-যদি আর দুই সেন্টিমিটার এদিক সেদিক হতো, তবে তুমি হয়তো আর কখনও হাঁটতে পারতে না।’