টিকার নিবন্ধন করতে কম্পিউটারের দোকানে লাইন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে চলছে গণটিকাদান কর্মসূচি। টিকা নিতে আগ্রহী অনেকে নিবন্ধন না করে আসায় তারা টিকা দিতে পারছেন না। এমতাবস্থায় তারা কেন্দ্র থেকে ফিরে নিবন্ধন করতে কম্পিউটারের দোকানে লাইন ধরেছেন।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৪-এর পাশের কয়েকটি কম্পিউটারের দোকানে এই লাইন দেখা যায়।

নিবন্ধনের জন্য লাইনে দাঁড়ানো আমেনা বেগম বলেন, ‘আগে অনেক ভিড় থাকতো তাই এবার আসলাম। কিন্তু এখনও নিবন্ধন করতে পারিনি। কম্পিউটারে নেটেও নাকি অনেক সময় লাগছে, কখন করতে পারমু জানি না।’

রিনা নামে আরেক নারী বলেন, ‘আগে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে থাকতে মানুষ অসুস্থ হয়ে যেতো তাই আসিনি। আমার স্বামীও তখন টিকা দিতে আসতে দেয়নি। এবার তাকে না জানাইয়া আইছি। নাম এন্টির জন্য আগেও লাইন হইতো।’

নিবন্ধন না করে ফিরে যাওয়া হালিমা বেগম বলেন, ‘নিবন্ধন করতে দেরি হচ্ছে। এতক্ষণ দাঁড়াইয়া থাকতে পারছি না। আবার বলতেছে, মোবাইল নিয়ে আইতে। কখন করমু। তাই চলে যাইতেছি।’

টিকার নিবন্ধন শেষ করে আসা সুফিয়া বেগম জানান, তিনি সকাল সাড়ে ১১টায় লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। এর দুই ঘণ্টা পর দেড়টায় টিকার নিবন্ধন ফর্ম নিয়ে হাসি মুখে বের হন তিনি। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করলেও শেষ পর্যন্ত নিবন্ধন করতে পেরে খুশি তিনি। নিবন্ধন করতে দোকানি ৪০ টাকা নিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

মহসিন ফটোকপির কম্পিউটার অপারেটর মো. রাসেল  জানান, ‘টিকা নিতে নিবন্ধন করছে অনেকে। আজ বেশি ভিড় করছে মানুষ।’

দেরি হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সার্ভারে সমস্যা হচ্ছে। মেসেজ আসতেও দেরি করছে। তাই সময় লাগছে।’

দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র-৪-এর টিকাকেন্দ্রের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলবে টিকাদান কার্যক্রম। এতে টিকা দেওয়া হবে ৩৫০ জনের।’