স্কুলমাঠ দখল করে ধান চাষ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:একসময়ে শিক্ষার্থীদের প্রাণচাঞ্চল্যে দিনভর মুখর থাকতো স্কুলের মাঠটি। এখন সেই স্কুলের খেলার মাঠটি দখল করে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রুহুল আজম কেরু ধান চাষাবাদ করছেন। ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের রামনগর পশ্চিমপাড়া বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। বিদ্যালয়টির বর্তমান চিত্র এটি। সবুজ ধানক্ষেতের হাতছানির দৃশ্যটি সুন্দর হলেও কাজটি ভালো না হওয়ায় ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে গ্রামবাসী-কোমলমতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। জোরপূর্বক শিক্ষার্থীদের খেলাধূলা বন্ধ করে এমন ঘৃণিত কাজ করায় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির বিচার দাবি করেছেন গ্রামবাসী।
বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে,স্কুলটির জমি সরকারি দলিলকৃত সম্পত্তি। সরকারিকরণে চিঠিও এসেছিল। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস থেকেও কর্মকর্তারা পরিদর্শন করেছেন। ভয়াবহ করোনার কারণে সরকারি নিদের্শনায় দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এই সুযোগটিই কাজে লাগিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রুহুল আজম কেরু ধান চাষাবাদ করছেন।ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির এমনকান্ডে হতবাক হয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির অন্য শিক্ষক-শিক্ষিকারাও।
ওই স্কুলের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, আগে স্কুলমাঠে ফুটবলসহ বিভিন্ন ধরনের খেলাধূলা করতাম। স্কুলের সভাপতি রুহুল আজম কেরু ধান চাষ করায় খেলাধূলা বন্ধ হয়ে গেছে।আমরা খেলাধূলার মাঠ আবার আগের মতো ফিরে পেতে চাই।
রামনগর পশ্চিমপাড়া বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক উজ্জ্বল বলেন,স্কুলটির জমি সরকারি দলিলকৃত সম্পত্তি।প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার মান ভালোছিল। বিদ্যালয় মাঠে ধান চাষ ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কেনো যে করছেন এটা আমার জানা নেই।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রুহুল আজম কেরুুর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি স্বীকার করে বলেন,এত বড় একটি জায়গা ফেলে রাখবো কি করে। তাই ধান চাষ করেছি।
মিরপুর উপজেলার সচেতন নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক নজরুল করিম বলেন,বিষয়টি একেবারেই দুঃখজনক। প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিরুদ্ধে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।
মিরপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মাসুদ রানা বলেন,একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খেলার মাঠ দখল করে ধান চাষ করা হচ্ছে এটা করার কোনো সুযোগ নেই। শিক্ষা অফিস থেকে লোক পাঠানো হবে এমন ঘটনা ঘটে থাকলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এ ব্যাপারে মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লিংকন বিশ্বাস বলেন,এমন কাজের সঙ্গে জড়িতদের ছাড় দেওয়া হবে না। দ্রুত ওই বিদ্যালয়ের মাঠে খেলাধূলার পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।