প্রতিটি মাছের বাজারে ফরমালিন বুথ স্থাপন দুরূহ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ‘মাছে ফরমালিনের ব্যবহার রোধে মৎস্য অধিদপ্তর নিয়মিতভাবে বাজার পরিদর্শন, অভিযান ও মোবাইলকোর্ট পরিচালনা করে আসছে। মৎস্য অধিদপ্তরের সীমিত জনবল দিয়ে বর্তমানে প্রতিটি মাছ বাজারে একটি করে ফরমালিন বুথ স্থাপন করা দুরূহ।’

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সংসদে টেবিলে উত্থাপিত দিদারুল আলমের (চট্টগ্রাম-৪) তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে একথা জানান তিনি।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আরও বলেন, তবে খাদ্যে ভেজাল রোধে মৎস্য অধিদপ্তর কর্তৃক স্বল্পমেয়াদি, মধ্যমেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নের আওতায় বাজার পরিদর্শন, মোবাইলকোর্ট পরিচালনা ও ফরমালিন মুক্ত বাজার ঘোষণা কার্যক্রম অব্যাহত আছে। দীর্ঘমেয়াদি কর্মপরিকল্পনার (মার্চ, ২০১৬ থেকে জুন, ২০২১ পর্যন্ত) আওতায় ১০৫টি উপজেলাকে মাছ বিপণনে ফরমালিন মুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে এবং ৪২ হাজার ১৬১টি বাজার পরিদর্শন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বিগত ২০২০-২০২১ অর্থবছরে সারাদেশের অভ্যন্তরীণ বাজার, আড়ত এবং অবতরণকেন্দ্রে সর্বমোট ২ হাজার ৮৬৪টি অভিযান, ২২৬টি মোবাইলকোর্ট পরিচালনা করে মাছ জব্দ ও অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। বর্তমান অবস্থায় সরকার তথা সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে প্রতিটি আড়তে মনিটরিং সেল গঠন করা যেতে পারে। ভবিষ্যতে মৎস্য অধিদপ্তরে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জনবলের সংস্থান করলে মাছে ফরমালিন ব্যবহার প্রতিরোধে প্রতিটি মৎস্য আড়তে মনিটরিং কার্যক্রম আরও জোরদার করা সম্ভব হবে।