গাজায় আবারও বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় আবারও হামলা চালিয়েছে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী। রোববার দিনের শুরুর দিকে গাজার দেইর আল-বালা শহরের আল-মাগজি শরণার্থী শিবিরে ওই হামলা চালানো হয়। স্থানীয় সূত্রের বরাত দিয়ে ফিলিস্তিনের সাফা নিউজ এজেন্সি এ তথ্য জানিয়েছে।

গাজার কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, ইসরায়েলের হামলায় শরণার্থী শিবিরের বেশ কয়েকটি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তবে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে ইসরায়েল দাবি করেছে, গাজার ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের রকেট তৈরীর কারখানা, একটি অস্ত্র গুদাম এবং কয়েকটি সুড়ঙ্গ পথ লক্ষ্য করে এসব হামলা চালানো হয়েছে। ইসরায়েলি বাহিনী বরাবরের মতোই দাবি করেছে, গাজা থেকে দুটি রকেট ছোঁড়ার পর এর প্রতিবাদে তারা পাল্টা বিমান হামলা চালিয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরে ইসরায়েলি বাহিনী গাজার ওপর দফায় দফায় বিমান হামলা চালাচ্ছে। ইসরায়েলের কুখ্যাত গিলবাও কারাগার থেকে ছয় ফিলিস্তিনি বন্দী পালিয়ে যাওয়ার পর এই হামলা শুরু হয়েছে।

কারাগার থেকে যে ছয়জন ফিলিস্তিনি পালিয়েছিল তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত চারজনকে আটক করেছে ইসরায়েল। গত সপ্তাহে উচ্চ নিরাপত্তা সম্পন্ন গিলবাও কারাগার থেকে পালিয়ে যান ওই ছয় ফিলিস্তিনি। স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, দেশের ইতিহাসে এটি অন্যতম একটি দুঃসাহসিক ঘটনা।

গত সপ্তাহে ইসরায়েলের জেনিন শহরের সুরক্ষিত গিলবোয়া কারাগার থেকে সুড়ঙ্গ খুঁড়ে পালিয়ে যান ছয় ফিলিস্তিনি বন্দি। ইসরায়েলের সবচেয়ে সুরক্ষিত কারাগারগুলোর মধ্যে অন্যতম গিলবোয়া কারাগার। এটি এতটাই সুরক্ষিত যে, সেটিকে ইসরায়েলের ‘সিন্দুক’ বলা হয়।