ভবন মালিকের ভাইয়ের ইটের আঘাতে ভাড়াটিয়ার মৃত্যু

রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় ভবন মালিকের ভাইয়ের ইটের আঘাতে কামরুল ইসলাম (৬৮) নামে এক ভাড়াটিয়ার মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) রাতে হাতিরঝিল থানাধীন রামপুরার পশ্চিম উলন ৫৭ নম্বর বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মালিকের ছোট ভাই জিকু (৩৮) ওই বাসার ভাড়াটিয়া কামরুলকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করেন। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রামপুরার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাতিরঝিল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মিনহাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি  বলেন, ‘আমরা খবর পেয়ে রামপুরার বেটার লাইফ হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্তে আমরা জানতে পেরেছি যে, রামপুরার পশ্চিম উলন ৫৭ নম্বর বাসার মালিকের ছোট ভাই কাজী জিকু (৩৮) ভাড়াটিয়া কামরুল ইসলামকে মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় রামপুরার বেটার লাইফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাতেই তিনি মারা যান। আমরা মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।’

নিহতের শ্যালক আশরাফুল হক বলেন, ‘আমার দুলাভাই কেমিস্ট ছিলেন, রামপুরার ওই বাসায় মালিকের ছোট ভাই কাজী জিকু তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করেন। রক্তাক্ত অবস্থায় রামপুরার একটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।’

জানা গেছে নিহত কামরুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার নবীপুর সরকার বাড়ির গ্রামে। তিনি মৃত আব্দুল করিমের সন্তান। বর্তমানে রামপুরার পশ্চিম উলন ৫৭ নম্বর বাসার দ্বিতীয় তলায় ভাড়া থাকতেন।