শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৬

মাদারীপুরের শিবচরে যাত্রী বোঝাই একটি পিকআপ খাদে পড়ে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৭ জন।

শনিবার (৩১ জুলাই) রাত ৯ টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের শিবচর উপজেলার আড়িয়াল খাঁ নদের হাজী শরিয়তউল্লাহ সেতুর টোলের কাছে ঘটে এ দুর্ঘটনা। শিবচর হাইওয়ে থানা পুলিশ ও শিবচর ফায়ার সার্ভিস এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

নিহতরা হলো- শিবচরের আড়িয়াল খাঁ টোলের কর্মরত শ্রমিক নির্মল, সোহান, পুলক। এদের তিনজনের বাড়ি মাদারীপুর সদর উপজেলায়।আর দুর্ঘটনার ট্রাকে থাকা শ্রমিক ভোলার লালমোহন উপজেলার রমাগঞ্চ গ্রামের কবির হোসেনের ছেলে মিরাজ (৩০), চরফ্যাশন উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে আরিফ (৩৫) ও পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার পসারিয়া গ্রামের বিল্লাল গাজীর ছেলে হান্নান গাজী (২৬)।

আহতরা হলেন- ভোলার লালমোহন উপজেলার রায়পুরা কান্দি গ্রামের রতনের ছেলে ইউনুছ গাজী (৩৫) ও তার স্ত্রী শিরিন বেগম (২৮) ও নিহত আরিফের স্ত্রী সোনিয়া। এছাড়া ৪ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও শিবচর ফায়ার সার্ভিস ও শিবচর হাইওয়ে থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভোলার লালমোহন থেকে যাত্রীবোঝাই করে একটি পিকআপ ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। পথিমধ্যে শিবচরের হাজি শরিয়তুল্লাহ সেতুর টোলের কাছে আসলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে টোলের কাজে কর্মরত তিন শ্রমিককে চাপা দিয়ে সড়কের রেলিং ভেঙ্গে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পিকআপে থাকা মিরাজ ও টোলের শ্রমিক সোহানের মৃত্যু হয়।

পরে স্থানীয়রা, ফায়ার সার্ভিস ও হাইওয়ে থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে শিবচরের পাচ্চর রয়েল হাসপাতালে নিয়ে যান ও কয়েকজনকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল নেওয়া হয়। তবে এদের মধ্য রয়েল হাসপাতালে আরিফের ও ভাঙা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলকের মৃত্যু হয়। এছাড়াও রাত বারটার দিকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজে নেওয়ার পথে হান্নান গাজী ও নির্মল নামে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়। এ সময় আহত হয় অন্তত ৭ জন।

এদিকে পাচ্চর রয়ের হাসপাতালে আহত ৩ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আর বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

টোল প্লাজার স্টাফ আনিস জানান, পিকআপটি টোল প্লাজার দায়িত্বে থাকা কর্মচারীদের উপর দিয়ে চলে যায়। পরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। বেপরোয়াভাবে চালানোতেই এই দুর্ঘটনা।

প্রত্যক্ষদর্শী মো. মেহেদী হাসান বলেন, পিকআপটি হাইওয়ে দিয়ে দ্রুত গতিতে টোল প্লাজার কাছাকাছি এসে রেলিং ভেঙে নিচের সংযোগ সড়কের উপর পরে পাশের খাদে পড়ে যায়। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের খবর দেয়া হয়।

পিকআটিতে থাকা আহত ইউনুছ গাজী জানান, সন্ধ্যায় তিনি বরিশাল থেকে তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্য রওনা হন। পিকআপটিতে প্রায় ১২-১৪ জন যাত্রী ছিল। এদের মধ্য ২ জন শিশু ছিল। দুর্ঘটনায় তার হাতটি কেটে যায়। এছাড়াও তার স্ত্রীর শরিরের আঘাত পান।

শিবচর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শ্যামল বিশ্বাস জানান, পিকআপ দুর্ঘটনায় ৬ জন মারা যান। তাদের মধ্যে তিনজন টোলে কর্মরত, বাকি তিনজন পিকআপের যাত্রী। তারা নির্মাণ শ্রমিক। আর আহতদের পাচ্চর রয়েল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শিবচর হাইওয়ে থানার পরিদর্শক (ওসি) মোহাম্মদ আলী বলেন, পিকআপটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে টোল প্লাজার কর্মরতদের উপর দিয়ে উঠিয়ে দিয়েছে। এতে টোল প্লাজার ৩ স্টাফসহ ৬ জন মারা যায়। আমরা সকলের নাম পরিচয় জানার চেষ্টা করছি।