মাকে ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে মারল মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে

মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখায় রাবেয়া বেগম (৫০) নামে এক নারীকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে।

শনিবার (১৭ জুলাই) রাতে নগরীর উত্তর মুনশিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাবেয়া বেগম ওই এলাকার মৃত ইকরামুল ইসলামের স্ত্রী।

এলাকাবাসী জানান, নিঃসন্তান ইকরামুল ইসলাম ও রাবেয়া বেগম দম্পতি পাবনা থেকে মাত্র এক বছর বয়সী রাকিবকে দত্তক নিয়ে আসেন। রাবেয়ার বাবার বাড়ি পাবনায়। পেশায় মাংস ব্যবসায়ী স্বামী ইকরামুল ইসলাম দুবছর আগে মারা গেছেন। রাকিব মানসিক ভারসাম্যহীন। এর আগেও অনেকবার অমানবিকভাবে মারধর করলেও নিঃসন্তান বিধবা রাবেয়া বেগম তাকে নিয়ে একা ওই বাড়িতে বসবাস করতেন।

শনিবার রাতে মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখায় রাবেয়া বেগমকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে আঘাত করে দত্তক ছেলে রাকিব। রাবেয়া বেগমের চিৎকার শুনে প্রতিবেশী অনেকেই ওই বাড়িতে আসেন। সেখানে ঘরের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে ছিলেন রাবেয়া বেগম। লোকজনের উপস্থিতিতেও ক্রিকেটের ব্যাট দিয়ে তার মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করতে থাকে রাকিব। তাকে থামানোর আগেই ঘটনাস্থলে মারা যান রাবেয়া।

প্রতিবেশীদের উদ্দেশে রাকিব চিৎকার করে বলছিল, মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখায় নিজে তার মাকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে।

খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ক্রিকেটের ব্যাটসহ রাকিবকে আটক করে পুলিশ।