ইসরায়েলে আমিরাতের দূতাবাসের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

আনুষ্ঠানিকভাবে বুধবার ইসরায়েলে আরব আমিরাতের দূতাবাসের যাত্রা শুরু হয়েছে। ওই দূতাবাসের উদ্বোধনের সময় ইসরায়েলের প্রেসিডেন্টও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তেল আবিবের স্টক এক্সচেঞ্জ ভবনে ওই দূতাবাস অবস্থিত।

এর আগে গত মাসেই আরব আমিরাতে দূতবাস চালু করে ইসরায়েল। তারই ধারাবাহিকতায় এবার ইসরায়েলে নিজেদের দূতাবাসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করল আমিরাত।

গত আগস্টে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণ চুক্তি সই করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। এরপর চলতি বছরের শুরুতেই ইসরায়েলি রাজধানী তেল আবিবে দূতাবাস স্থাপনের আনুষ্ঠানিক অনুমোদন দেয় আমিরাতের মন্ত্রিসভা।

এদিকে ইসরায়েলি প্রেসিডেন্ট ইসাক হেরজগের পাশে দাঁড়িয়ে স্টক এক্সচেঞ্জের ভবনের বাইরে নিজ দেশের পতাকা উত্তোলন করেন ইসরায়েলে নিযুক্ত আমিরাতের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আল খাজা।

গত ২৫ বছরের মধ্যে আরব বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে আমিরাত। সবশেষ ১৯৯৬ সালে ইসরায়েলিদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পর্ক গড়েছিল জর্ডান।

এরপর গত দুই যুগ ধরে আর কোনো আরব দেশ ইসরায়েলের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্ক করেনি, যদিও তাদের অনেকে গোপনে বা পরোক্ষভাবে সম্পর্ক বজায় রেখেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

আরব দেশগুলোর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই সম্পর্ক খারাপ ছিল ইসরায়েলের। এর মূল কারণ ফিলিস্তিন ইস্যু। তবে ট্রাম্প প্রশাসনের তৎপরতায় সেই অবস্থান থেকে সরে গত বছর ইসরায়েলিদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে আমিরাত, বাহরাইন, মিসর, মরক্কোর মতো মুসলিম দেশগুলো। এদিকে আবুধাবিতে ইসরায়েলি দূতাবাসের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত হিসেবে কাজ শুরু করেছেন এইতান নায়েহ নামের এক কূটনীতিক।