লকডাউনে শোভা পাচ্ছে গরু-ছাগলের হাটের ব্যানার

দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। টানা গত কয়েকদিনে করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের দিক দিয়ে রেকর্ড গড়ছে।

এমন পরিস্থিতিতে করোনা সংক্রমণ রোধে ১৪ জুলাই পর্যন্ত দেয়া চলমান কঠোর লকডাউনের (বিধিনিষেধ) দশমদিনে এসে সড়কে শিথিলতা দেখা গেছে।

শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় লকডাউন কার্যকরে শিথিলতা দেখা যায়। শুধু তাই নয়, রাজধানীর আজিমপুরের অদূরে পলাশী বাজারের মোড়ে গরু-ছাগলের বিশাল হাটের লম্বা ব্যানারও দেখা যায়। একই সঙ্গে রাস্তার পাশে দেয়ালে ছোট ছোট পোস্টারও দেখা যায়।

ব্যানারে লেখা রয়েছে- ‘ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) অনুমোদনপ্রাপ্ত, স্থান রহমতগঞ্জ খেলার মাঠ, লালবাগ এবং ইজারাদার হাজী শেখ শহিদুল্লাহ সাবু, তত্ত্বাবধানে হাজী শফি মাহমুদ, মো. জামালউদ্দিন, শেখ মো. জাহিদুল এবং পরিচালনায় ইমতিয়াজ আহমেদ সবুজ।’ ব্যানারে আবার কয়েকটি মোবাইল নম্বরও দেয়া রয়েছে।

আজিমপুর এলাকার বাসিন্দা শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘মানুষের জীবন রক্ষার্থে একটি বছর পশু কোরবানি না করে সেই টাকায় গরিব-দুঃখী ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের দেয়া উচিত। কিন্তু অবাক হয়ে খেয়াল করলাম, লকডাউন অবস্থাতেই রাস্তায় গরু-ছাগলের হাটের বড় বড় ব্যানার শোভা পাচ্ছে। সিটি মেয়ররা অনলাইনে পশু বেচাকেনার কথাও বলছেন। কিন্তু বাস্তবে লকডাউন শিথিল হচ্ছে আর গরু-ছাগলের হাটের বাজনা বাজতে শুরু হয়েছে।’

এ বিষয়ে ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের বলেন, ‘চলমান মহামারি বিবেচনায় শুক্রবার (৯ জুলাই) ডিএসসিসির ১৩টি অস্থায়ী হাটের মধ্যে লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাব সংলগ্ন খালি জায়গা ও কমলাপুর স্টেডিয়াম সংলগ্ন বিশ্বরোডের আশপাশের খালি জায়গা, আমুলিয়া মডেল টাউনের আশপাশের খালি জায়গা এবং শ্যামপুর কদমতলী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন খালি জায়গায় হাটের ইজারা বাতিল করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত নতুন করে আর কোনো সিদ্ধান্ত পাইনি।’

এদিকে কোরবানির শুর হাট ইজারা তদারকি করে ডিএসসিসির সম্পত্তি বিভাগ। এই বিভাগের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়ে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডিএসসিসির সম্পত্তি বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘এখন দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় ১০টি অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী কিছু দিন করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানানো হবে।’

তিনি বলেন, ‘পশুর হাটগুলোতে ঈদুল আজহার দিনসহ মোট পাঁচদিন কেনাবেচা করা যাবে। হাটগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানাসহ অন্যান্য শর্তাবলী সাপেক্ষে অস্থায়ী ১০টি পশুর হাট ইজারাপ্রাপ্তদের সঙ্গে চুক্তি সম্পন্ন করা হচ্ছে।’

এদিকে শুক্রবার (৯ জুলাই) সারাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রেকর্ড সংখ্যক ২১২ জনের মৃত্যু হয়। স্বাস্থ্য ও রোগতত্ত্ব বিশেষজ্ঞরা করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউন কঠোরভাবে পালন করতে বলছেন। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, মাস্ক পরিধান করা, ২০ সেকেন্ড ধরে ঘন ঘন হাত ধৌত করা, প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হওয়া ও জনসমাগম এড়িয়ে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন।