দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

সিরিজের একমাত্র টেস্টের জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথমদিনের খেলায় মুমিনুল-লিটন-মাহমুদউল্লাহদের কল্যাণে দিনশেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছিল ৮ উইকেটে ২৯৪ রান। দ্বিতীয় দিনের খেলায় আজ আবারও ব্যাট করতে নেমেছেন আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও তাসকিন আহমেদ। প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ৩২০ রান।

৬১ রানে রিয়াদ এবং ২৪ রানে অপরাজিত রয়েছেন তাসকিন আহমেদ।

এর আগের প্রথম দিন ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি সফররত বাংলাদেশ দলের। ইনিংসের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই জিম্বাবুইয়ান পেসার মুজারাবানির বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন সাইফ হাসান। আউট হওয়ার পূর্বে ব্যক্তিগত রানের খাতার কিছুই যোগ করতে পারেননি তিনি।

দ্বিতীয় উইকেটে ব্যাট করতে আসা নাজমুল হাসান শান্তকেও সুবিধা করতে দেননি মুজারাবানি। তার বলে স্লিপে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন শান্ত। সাজঘরে ফেরান আগে তিনি করেন মাত্র ২ রান।

তৃতীয় উইকেটে জুটিতে চাপ সামলে দলের হাল ধরেন যাচ্ছেন সাদমান-মুমিনুল। এ সময় দুজন মিলে তুলেন ৬০ রান। ৬৪ বলে ২৩ রান করে আউট হন সাদমান। পরের উইকেটে মুশফিকুর রহিম নিয়ে আরও প্রতিরোধের চেষ্টা করেন মুমিনুল। কিন্তু অধৈর্য্য হয়ে মুশফিক ফিরেছেন ব্যক্তিগত ১১ রান। আর টেস্টে ফিরে ব্যাট হাতে কিছুই করতে পারেননি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আউট হওয়ার আগে ৫ বলে করেছেন মাত্র ৩ রান।

এ দিকে আপনতালে খেলতে থাকা দলীয় অধিনায়ক মুমিনুল হক ক্যারিয়ারের আরও একটি ফিফটি তুলে নেন। এরপর দেখে-শুনেই খেলছিলেন তিনি। কিন্তু ব্যক্তিগত ৭০ রানে মেয়ার্সের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন মুমিনুল।

১৩২ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর কিছুটা ভীতি সঞ্চার হয়েছিলো টাইগার শিবির। এমন সময় দলের হয়ে ক্রিজে খুঁটি গাড়েন লিটন-মাহমুদউল্লাহ। সপ্তম উইকেট জুটিতে দুজন মিলে গড়েন ১৩৮ রানের জুটি। হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর হাঁটছিলেন সেঞ্চুরির পথেই। কিন্তু ৯৫ রানে ডোনাল্ড তিরিপানোর বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। পরেই বলেই আউট হয়েছে বোলিং অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ।

এ দিকে তাসকিন আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে দিনশেষ করার আগে মাহমুদউল্লাহ তুলে নেন ব্যক্তিগত পঞ্চাশোর্ধ রানের ইনিংস। দিনশেষে অপরাজিত রয়েছেন ৫৪ রানে। আর তাসিকন অপরাজিত রয়েছেন ১৩ রানে।