‘জরুরি পদক্ষেপ না নিলে ডেঙ্গু রোগী আরও বাড়বে’

করোনা সংকটের মধ্যেই সারাদেশে আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। থেমে থেমে হওয়া বৃষ্টি ও শুষ্ক আবহাওয়ার জন্য এডিস মশার ঘনত্বও বাড়ছে। এই মশা নিয়ন্ত্রণে এখনই কঠোর পদক্ষেপ না নিলে চলতি ও আগস্ট মাসে ডেঙ্গু পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এ বিষয়ে কীটতত্ত্ববিদ ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. কবিরুল বাশার জাগো নিউজকে বলেন, জুন মাসে ঢাকার বিভিন্ন ওয়ার্ড ও দেশের বিভিন্ন স্থানে এডিস মশা নিয়ে গবেষণা করেছি। সেখানে দেখেছি সারাদেশ ও রাজধানীর প্রতিটি ওয়ার্ডে এডিস মশার বেশি ঘনত্ব পাওয়া যাচ্ছে এখন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে।

তিনি আরও বলেন, গবেষণার তথ্য ও রোগীর সংখ্যা বাড়ার প্রবণতা দেখে মনে হচ্ছে জুলাই-আগস্টে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা আরও বাড়বে, যদি না এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে জরুরি পদক্ষেপ না নেয়া হয়। সেক্ষেত্রে সিটি করপোরেশন ও নগরবাসীর যৌথ পদক্ষেপ নেয়া জরুরি।

জুলাই মাসে পর্যাপ্ত পরিমাণ বৃষ্টিপাত এবং উপযুক্ত তাপমাত্রায় দেশের বিভিন্ন স্থানে পড়ে থাকা পাত্রগুলোতে এডিস মশা জন্মানোর পরিবেশ তৈরি হয়েছে এবং প্রচুর এডিস মশার জন্ম হচ্ছে জানিয়ে ড. কবিরুল বাশার বলেন, জরুরিভিত্তিতে মশা জন্মানোর স্থানগুলোতে কীটনাশক না ছেটালে ডেঙ্গু পরিস্থিতি খারাপ হতে পারে।

জানা গেছে, হাসপাতালগুলোতে প্রতিদিনই ডেঙ্গু রোগী বাড়ছে। গত জুনে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭১ জন। আর ৩০ জুন থেকে ৩ জুলাই পর্যন্ত চার দিনে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন অন্তত ৮১ জন।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে জানানো হয়েছে, হঠাৎ ভারী বর্ষণ এবং চলতি বর্ষা মৌসুমে এডিস মশার বংশবিস্তারের কারণে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগনিয়ন্ত্রণ শাখার অধীন জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল ও এডিসবাহিত রোগনিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে।