মালয়েশিয়ায় ১৫০ বিলিয়ন রিঙ্গিতের সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা

মালয়েশিয়ায় অনির্দিষ্টকালের লকডাউনের মধ্যে দেশের জনগণ ও ব্যবসায়ীদের সহায়তায় ১৫০ বিলিয়ন রিঙ্গিতের পেমুলিহ প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন।

সোমবার (২৮ জুন) টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে মুহিউদ্দিন ইয়াসিন বলেছেন, পেমুলিহ নামে ত্রাণ প্যাকেজের আওতায় সরাসরি আর্থিক ১০ বিলিয়ন রিঙ্গিত সহায়তা প্রদান করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন কোভিড -১৯ সংক্রমণ চার হাজারের নিচে নেমে না আসার আগ পর্যন্ত লকডাউন চলবে বলে ঘোষণা দেয়ার একদিন পরই এ প্যাকেজের ঘোষণা করলেন তিনি। আগামী ২৮ জুন দেশটিতে লকডাউন শেষ হওয়ার কথা ছিল।

এর আগে ১ জুন লকডাউন শুরু হওয়ার আগে মুহিউদ্দিন ৪০ বিলিয়ন রিঙ্গিতের পিমারকাসা প্লাস প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন। এতে সরাসরি আর্থিক ৫ বিলিয়ন রিঙ্গিত সহায়তার কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তবে বিভিন্ন মহল জানিয়েছে, প্রয়োজনীয় লোকদের সহায়তা করার জন্য প্যাকেজটি খুব ছোট ছিল। বিশেষত যদি লকডাউন আরও বাড়ানো হয়।

প্রধানমন্ত্রী দরিদ্র হিসাবে বিবেচিত পরিবারগুলোর মধ্যে- বি ৪০ পরিবারের জন্য ৮০০ এবং এম ৪০ পরিবারের জন্য ২৫০ রিঙ্গিত করে সহায়তা দেয়ার ঘোষণা দেন। আর অতি দরিদ্র পরিবারে ৫০০, ২০০ এবং ১০০ যথাক্রমে ই ৪০ এবং গ ৪০ এর মধ্যে সহায়তা দেয়া হবে।

এদিকে, প্রতিবন্ধীদের খাবার সরবরাহে প্রত্যেক সংসদ সদস্যকে ৩০ হাজার প্যাকেট করে বরাদ্দ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন, এটি বিরোধী দলের নির্বাচিত প্রতিনিধিদেরও দেয়া হবে। এছাড়া বিশেষভাবে ওরাঙ্গ আসলি সম্প্রদায়ের জন্য ১০ মিলিয়ন রিঙ্গিত বরাদ্দ করা হবে।

মানসিক স্বাস্থ্য এবং ঘর হারানোর মতো সামাজিক সমস্যা পরিচালনায় সরকারকে সহায়তা করার জন্য এনজিওগুলোতে ১৫ মিলিয়ন রিঙ্গিত বরাদ্দ করা হবে। পুত্রাযায়া (সরকার) হটলাইনের মাধ্যমে তার মনস্তাত্ত্বিক সমর্থন প্রসারিত করবে।

জুলাইয়ের শুরু থেকে তিন মাসের জন্য বিদ্যুৎ বিলে ৫-৪০ শতাংশ ছাড়ের ঘোষণাও করেছেন মহিউদ্দিন। হোটেল, থিম পার্ক, কনভেনশন সেন্টার, শপিংমল এবং স্থানীয় পর্যটন সংস্থাগুলোর মতো ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ মওকুফও ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হবে।