নওগাঁয় নগ্ন ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ভঁয় দেখিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় যুবক আটক

শহিদুল  ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ
নওগাঁয় নগ্ন ভিডিও সোস্যাল মিডিয়া (ইন্টারনেটে) ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে এক গৃহবধূকে ৪ বছর ধরে ধর্ষণ করার অভিযোগে অভিযুক্ত যুবককে আটক করেছে পুলিশ।  ব্লাক-মেইল করে দীর্ঘ ৪ বছরধরে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে                              নওগাঁর মান্দায় উপজেলায়।
ইতি মধ্যেই থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার বিকালে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত যুবককে আটক পূর্বক বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে শুক্রবার নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।আটককৃত যুবক মিঠুন (৩৮) মান্দা উপজেলার ভারশোঁ ইউনিয়নের বলাক্ষেত্র গ্রামের মতিলাল মন্ডলের ছেলে। প্রথমে কৌশলে নগ্ন ভিডিও ধারন ও পূর্বক সম্পর্ক গড়ে তুলে পরবর্তীতে কৌশলে ফাঁকা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে ঐ গৃহবধূকে ব্লাক-মেইলের মাধ্যমে ৪ বছর ধরে ধর্ষণ করে আসছিলো যুবক মিঠুন। এক পর্যায়ে গৃহবধূ অতিষ্ট হয়ে ঘটনাটি তার স্বামীকে জানিয়ে স্বামীর পরামর্শে ভুক্তভোগী গৃহবধূ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টারদিকে মিঠুন এর কাছে ভিডিও স্টাম্প নিতেগেলে ফের  মারধরের শিকার হন গৃহবধূ। এরপর গৃহবধূকে উদ্ধার করে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন স্বজনরা।
ভুক্তভোগী গৃহবধূ সাংবাদিকদের জানান, অভিযুক্ত মিঠুন প্রতিবেশি সম্পর্কে দেবর হোন। প্রতিবেশি বলে উভয় পরিবারে নিয়মিত যাতায়াত ছিলো। সেই সূত্র ধরে মিঠুন তাকে মাঝে মধ্যেই নানাভাবে কুপ্রস্তাব দিত। একপর্যায়ে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে প্রায় ৪ বছর পূর্বে একদিন মিঠুন কৌশলে তাকে ধর্ষণ করেন ও গোপনে সেই নগ্ন ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করেন, যা পরবর্তীতে আমাকে দেখিয়ে এবং ছড়িয়ে দেওয়ার ভঁয় দেখিয়ে আমার সাথে দৈহিক সম্পর্ক নিয়মিত করেন এবং এক পর্যায়ে সে সময় কৌশলে মিঠুন দুইটি ফাঁকা স্ট্যাম্পে আমার স্বাক্ষর নেয়। এরপর থেকেই মিঠুন ফোনে সেই ধারণকৃত ভিডিও সোস্যাল মিডিয়া (ইন্টারনেটে) ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি ও ফাঁকা স্ট্যাম্প জিম্মি করে আমাকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করতে থাকলেও আমি ভঁয়ে বিষয়গুলো স্বামীসহ পরিবারের লোকজনের নিকট গোপন রাখি কিন্তু দিনদিন তার অত্যাচারে আমি অতিষ্ট হয়ে অবশেষে ঘটনাটি স্বামীকে জানাই এবং লোক লজ্জাকর বিষয় হওয়াই স্বামীর পরামর্শে ভিডিও সহ সেই স্টাম্প ফেরত নিতেগেলে আমাকে না দিয়ে মারপিট করেন।
ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বামী জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার স্ত্রী অস্বাভাবিক আচরণ করে আসছিলো। জানতে চাইলেও বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে এড়িয়ে যেত। সম্প্রতি বিষয়গুলো প্রকাশ করলে ফাঁকা স্ট্যাম্প ও ভিডিওগুলো উদ্ধারের পরামর্শ দেয় হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টারদিকে সেগুলো ফেরত নেয়ার জন্য গেলে তাকে মারধর করেন মিঠুন জানিয়ে এসময় বখাটে মিঠুনের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তিরও দাবি জানান গৃহবধূর স্বামী।
এব্যাপারে মান্দা থানার ওসি শাহিনুর রহমান জানান, বিষয়টি জানার পরই অভিযান চালিয়ে বখাটে মিঠুনকে আটক করা হয়েছে। এঘটনায় ভিকটিম বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন এবং আটককৃত মিঠুনকে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।