মানসিক প্রতিবন্দী নারীকে উদ্ধারের ৩৬ ঘন্টার মধ্যেই বাড়িতে পৌছে দিলো মানবিক পুলিশ

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ
এক মানসিক প্রতিবন্দী নারীকে সন্ধার পর গ্রামের ভেতর এলোমেলো ভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে গ্রামের লোকজন ঘটনাটি পুলিশকে জানালে সাথে সাথে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে নারীটিকে উদ্ধারের মাত্র ৩৬ ঘন্টার মধ্যেই প্রথমে তার পরিবার সনাক্ত করেন এবং মানসিক ভারসাম্যহীন নারীটিকে বাড়িতে পৌছে দেন মানবিক পুলিশ।
স্থানিয় সুত্রে জানাগেছে, নওগাঁর  নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ি এলাকার বাগধানা গ্রামের ভেতর গত সোমবার সন্ধার পর অজ্ঞাত এক নারী সন্দেহ জনকভাবে চলাফেরা করছেন দেখতে পেয়ে গ্রামের লোকজন ঘটনাটি স্থানিয় নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এস আই জিয়াউর রহমান জিয়াকে জানান। খবর পাওয়ার সাথে সাথে সঙ্গীয় ফোর্স সহ এস আই জিয়াউর রহমান জিয়া ঘটনাস্থলে পৌছে জিজ্ঞাসাবাদ করাকালেই বুঝতে পারেন যে নারীটি সম্ভাব্য মানসিক প্রতিবন্দী, এসময় তিনি ঘটনাটি মহাদেবপুর থানার ওসি মহোদয় কে অবগত করেন এবং ওসি’র দিক নির্দেশনায় নারীটিকে উদ্ধার পূর্বক কৌশলে নাম পরিচয় জানার চেষ্টা করাকালে নারীটি জানায় তার নাম
জোসনা এবং বাড়ি মহাদেবপুর এর ওপারে সহ এর বাইরে আর কিছু জানাতে না পারায়। পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এস আই জিয়াউর রহমান জিয়া সোস্যাল মিডিয়া সহ বিভিন্নভাবে নারীটির পরিচয় বা পরিবার সনাক্তের জন্য তৎপরতা শুরু করেন এবং বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে অবশেষে তথ্য পান যে জোসনা (২৪),পিতা মৃত  ইসমাইল  সাং মতিজাপুর থানা মহাদেবপুর জেলা নওগাঁ ঠিকানার এক মানসিক প্রতিবন্ধী মেয়ে তার কাছে থেকে গত সোমবার সকাল ৭ টারদিকে নিখোঁজ হোন। এমন তথ্য পাওয়ার সাথে সাথে মানসিক প্রতিবন্দী নারীটিকে নিয়ে ৮ জুন মঙ্গলবার উপরোক্ত ঠিকানায় পৌছালে উপস্থিত গ্রামের লোকজন পুলিশ দেখে ঘটনাস্থলে জড়ো হন, এসময় পরিচয় বা সনাক্ত নিশ্চিত করায় উদ্ধারকৃত জোসনা নামে মানসিক প্রতিবন্দী নারীকে তার বিধবা মায়ের হাতে তুলে দেন নওহাটামোড় ফাড়ি পুলিশ।
শত্যতা নিশ্চিত করে নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এস আই জিয়াউর রহমান জিয়া প্রতিবেদককে জানান, খবর পেয়ে ঐ মানসিক প্রতিবন্দী নারীকে প্রথমে উদ্ধার পূর্বক ঘটনাটি ওসি মহোদয়কে জানানো হয় এবং ওসি’র দিকনির্দেশনায় অবশেষে নারীটিকে তার মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।