পাকিস্তানে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত বেড়ে ৬৪

Railway workers try to clear the track at the site of a train collision in the Ghotki district, southern Pakistan, late Monday, June 7, 2021. An express train barreled into another that had derailed in Pakistan before dawn Monday, killing dozens of passengers, authorities said. More than 100 were injured, and rescuers and villagers worked throughout the day to search crumpled cars for survivors and the dead. (AP Photo/Fareed Khan)

পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে গত সোমবারের ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৪ জনের পৌঁছেছে। এতে গুরুতর আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থাই আশঙ্কাজনক হওয়ায় মৃতের তালিকা আরও দীর্ঘ হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার (৮ জুন) হতাহতদের দু’টি তালিকা প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে একটিতে ১২ জনকে অজ্ঞাত বলা হয়েছে, যাদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে মাত্র একমাসের শিশু থেকে ৮১ বছরের বৃদ্ধাও রয়েছেন।

সিন্ধের ঘোটকি জেলার ডেপুটি কমিশনার উসমান আব্দুল্লাহ মঙ্গলবার বলেছেন, আরও অনেক মানুষ মারা যেতে পারেন বলে তারা আশঙ্কা করছেন।

সোমবার এ দুর্ঘটনায় ১০০ জনেরও বেশি গুরুতর আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে নিশ্চিত করেছেন আব্দুল্লাহ।

জানা যায়, স্থানীয় সময় সোমবার ভোরে মিল্লাত এক্সপ্রেস নামের একটি যাত্রীবাহী ট্রেন করাচি থেকে সারগোদার দিকে যাচ্ছিল। পথে রাইতি রেলওয়ে স্টেশনের কাছে সেটি লাইনচ্যুত হয়। এ সময় রাওয়ালপিন্ডি থেকে ছেড়ে আসা স্যার সাঈদ এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত ট্রেনটিকে আঘাত করে। খবর পেয়ে উদ্ধারকারীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং উদ্ধার কাজ শুরু করেন।

তবে দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া বগিগুলো কাটতে ভারী যন্ত্রপাতি পৌঁছায় দুর্ঘটনার প্রায় ১৫ ঘণ্টা পর। ভেতরে কেউ আটকা রয়েছেন কিনা তা দেখতে সাবধানে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন উদ্ধারকারীরা। তবে ভেতর থেকে আর কাউকে জীবিত উদ্ধারের আশা ক্রমেই ক্ষীণ হয়ে আসছে।

দুর্ঘটনার সময় দুই ট্রেনে এক হাজারের বেশি যাত্রী ছিলেন বলে জানা গেছে। মিল্লাত এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত হওয়ার কারণ কী তা এখনো নিশ্চিত নয়।

উদ্ধারকাজে সাহায্যের জন্য ঘটনাস্থলে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সদস্য, প্রকৌশলী ও হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে।

সূত্র