যে কারণে এবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হননি রুহানি

ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিতে বৈধ প্রার্থীদের চূড়ান্ত নাম ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ১৮ জুন দেশটিতে ১৩তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

বিশেষ কিছু কারণে দেশ বিদেশে ইরানের নাগরিকদের জন্য এবারের নির্বাচনকে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

আগামী ১৮ জুন শুক্রবার ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নির্বাচন আয়োজন ও পরিচালনার মূল দায়িত্ব পালন করে থাকে। এবারের নির্বাচনে ইরানের বর্তমান প্রেসিডেন্ট হাসার রুহানি অংশ নিতে পারেননি।

ইরনা জানিয়েছে, একটানা দুই মেয়াদের বেশি সময়ের জন্যে প্রেসিডেন্ট পদে থাকার অধিকার ইরানের সংবিধানে নেই।

দেশটির সংবিধান অনুযায়ী একজন প্রেসিডেন্ট চার বছর মেয়াদের জন্যে নির্বাচিত হন। পরপর দুই মেয়াদে নির্বাচনে অংশ নিয়ে টানা ৮ বছর ক্ষমতায় থাকতে পারেন। তবে দুই মেয়াদে প্রেসিডেন্ট থাকার পর অন্তত এক মেয়াদ নির্বাচনের বাইরে থেকে পরবর্তীতে আবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে বাধা নেই।

ইরানের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি টানা দুই মেয়াদ অর্থাৎ আট বছর এই দায়িত্বে রয়েছেন। তিনি চাইলেও এবারের নির্বাচনে অংশ নিতে পারতেন না, কারণ সংবিধানে এর অনুমোদন নেই।

এবারের নির্বাচনে ৫৯২ জন প্রার্থী হিসেবে নাম নিবন্ধন করেছিলেন। এর মধ্যে যাচাই-বাছাই শেষে সাত জনের প্রার্থিতা অনুমোদন পেয়েছে।

প্রার্থীরা হলেন, সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসি, মোহসেন রেজায়ি, মোহসেন মেহের আলীজাদে, সাঈদ জালিলি, আলী রেজা যাকানি, আব্দুন নাসের হেম্মাতি ও সাইয়্যেদ আমির হোসেন কাজিজাদে হাশেমি।