নওগাঁয় চাইনিজ রেস্টুরেন্টের ভেতর থেকে ক্ষত-বিক্ষত নৈশ্য প্রহরী মৃতদেহ উদ্ধার

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ নওগাঁ শহরের মুক্তির মোড়ে অবস্থিত ইডেন এন্ড চাইনিজ রেস্টুরেন্টের ভেতর থেকে নৈশ্য প্রহরী আতাউর রহমান(৪৫) এর ক্ষত-বিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার।

 

পিটিয়ে ও অস্ত্রদিয়ে আঘাত করে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে স্থানিয়রা ও প্রশাসন প্রাথমিকভাবে ধারনা করছেন। খবর পেয়ে সিআইডি রাজশাহী ফরেন্সিক বিভাগের একটি দল ঘটনাস্থল এসে তদন্ত শেষে শনিবার দুপুরে নৈশ্য প্রহরীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকে সহকারি বাবুচি মোঃ বাদল পলাতক রয়েছে। নিহত আতাউর জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর থানার চকমহিতুল গ্রামের আহম্মদ মণ্ডলের ছেলে। দীর্ঘদিন যাবৎ সে নওগাঁ শহরের কোমাইগাড়ী এলাকায় বসবাস করে আসছিলন। এব্যাপারে ঐ হোটেলের ম্যানেজার মুনজুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, প্রতিদিনের নাই শুক্রবার রাত সড়ে ১০টারদিকে হোটেল বন্ধ করে তিনি বাসায় চলে যান।

সকাল সাড়ে সাতটায় হোটেলের বাবুর্চি হোটেলে এসে নিহত আতাউর রহমানকে ডাকাডাকি করলে কোন সাড়াশব্দ পায় না। পরে বাবুর্চি তাকে জানালে সে রেষ্টুরেন্টে এসে রেস্টুরেন্টে তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে কাপড়ের ভিতরে তার মৃতদেহ দেখতে পাওয়া যায় এবং নিহতের শরীরে ধারালো কিছুদিয়ে (খোঁচানো) রক্তাক্ত আঘাতের চিহ্ন দেখতে পাওয়া যায় এবং ঘটনাটি থানা পুলিশকে জানানো হয়।

এব্যাপারে নওগাঁ সদর মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, ঘটনার খবর পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছে, এছাড়াও রাজশাহী সিআইডি ফরেন্সিক বিভাগের একটি দল এসে ঘটনাস্থল তদন্ত শেষে নৈশ্য প্রহরীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনারপর থেকে পলাতক সহকারি বাবুচি মোঃ বাদলকে আটকের জন্য অভিযান চলছে। বাদলকে আটক করা সম্ভব হলে তার মৃত্যুর প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করা সম্ভব হবে আশা করা হচ্ছে।