নওগাঁয় গোসলের ভিডিও ধারন করে চাচীকে ব্লাকমেইল ঘটনায় একজন আটক

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃনওগাঁর বদলগাছীতে চাচীর গোসলের ছবি গোপনে মোবাইল ফোনে তুলে সেই ছবি এডিট করে ভিডিওচিত্র বানিয়ে চাচীকে  ভাতিজা কর্তৃক ব্লাকমেইল করা ও মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত ভাতিজা জয় হোসেন ও শিউলি খাতুনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৩ জনের নামে বুধবার বিকালে মামলা করেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ অভিযুক্ত শিউলি খাতুন (৩৬)কে তার নিজ বাড়ি থেকে বৃহস্পতিবার আটক করেছেন। ঘটনার নায়ক ভাতিজা পলাতক থাকায় তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।
ওসি জানান, অভিযুক্ত ভাতিজাকে আটকের জন্য পুলিশি চেষ্টা চলমান রয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা যায়,  আট বছর আগে গৃহবধূর বিয়ে হয়। এ দম্পতির সাত বছরের একটি মেয়ে আছে। গত বছরের জানুয়ারি মাসের প্রথম দিকে ওই যুবক ( গৃহবধূর স্বামীর চাচাত ভাইয়ের ছেলে-ভাতিজা) গৃহবধূর গোসলের অশ্লীল ছবি মুঠোফোনে ধারন করেন। পরে ছবি থেকে ভিডিও করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব দেন ভতিজা।
একপর্যায়ে গৃহবধূ বিষয়টি তার স্বামীকে জানান। তখন যুবকের পরিবারকে বিষয়টি জানানো হয়। এতে যুবক ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিবেশী শিউলি খাতুন নামের নারীর মাধ্যমে স্থানীয়দের মোবাইল ফোনে গৃহবধূর অশ্লীল ছবির ভিডিও ছড়িয়ে দেন। এর পর সেই ছবি থেকে ইডিট করে ভিডিও প্রকাশের পর গৃহবধূকে তার স্বামী গত বৃহস্পতিবার (২০ মে ) তালাক দেয়। এর এরপর গৃহবধূ থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। বিষয়টি পর্নোগ্রাফি আইনের মধ্যে পড়ায় বৃহস্পতিবার বিকালে মামলা থানায় দায়ের হয়।
ওই গৃহবধূ বলেন, আমার স্বামীর ভাতিজা জয় গোপনে আমার গোসলের ছবি তুলে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে কুপ্রস্তাব দিয়েছিল এবং আমাকে ব্লাকমেইল করে সম্পর্ক করতে বাধ্য করেছিলো।  ৮ মাস আগে অভিযুক্ত ভাতিজা বিয়ে করেন। তারপরও সে আমার সাথে সম্পর্ক চালিয়ে যেতে চায়। এতে আমি রাজি না হওয়ায় ছবি থেকে ভিডিও করে ছড়িয়ে দেয়। প্রথম ভিডিও প্রতিবেশী শিউলির মাধ্যমে ছড়ানো হয় বলে জানতে পেরেছি। পরে ভিডিওর বিষয়ে জানাজানি হলে আমার স্বামী আমাকে তালাক দেন, কিন্তু আমি আমার স্বামীর সঙ্গে সংসার করতে চাই। পরিবারের কাছে আমাকে ছোট হতে হচ্ছে লজ্জায়। বিনা অপরাধে সম্মান, স্বামী, সংসার সবকিছু আমি হারিয়েছি এজন্য নিরুপায় হয়ে অবশেষে থানা পুলিশের শরণাপূর্ণ হয়ে মামলা দায়ের করেছি। মামলা করার পর পুলিশ ইতিমধ্যেই সেই অভিযুক্ত শিউলি খাতুনকে আটক করলেও মূল নায়ক অভিযুক্ত জয় পলাতক থাকায় তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। আমি জড়িতদের কঠিন শাস্তি চাই।
তিনি আরো বলেন, প্রশাসন দ্রুত প্রদক্ষেপ নিয়ে একজনকে আটক করেছে এজন্য ধন্যবাদ জানাই, একই সাথে অভিযুক্ত মূল নায়ক লম্পট ভাতিজা যে আমার সর্বনাশ করলো তাকেও দ্রুত আটক করার দাবি জানাচ্ছি।
এব্যাপারে বদলগাছী থানার ওসি আতিকুল ইসলাম বলেন, ভুক্তভোগী ঐ গৃহবধূর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে মামলা রেকর্ড পূর্বক অভিযুক্ত শিউলি খাতুন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। তবে অভিযুক্ত জয় পলাতক রয়েছেন, তাকেও আটকের জন্য চেষ্টা চলছে। আটককৃত শিউলি খাতুনকে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করা হয়।
Attachments area