রোজিনার মুক্তির দাবিতে নারী সাংবাদিকদের প্রতীকী অনশন

কারাবন্দি সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করে প্রতিবাদী প্রতীকী অনশন করছে বিক্ষুব্ধ নারী সাংবাদিকরা।

শনিবার (২২ মে) সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) প্রাঙ্গণে এই প্রতীকী অনশন শুরু হয়।

 

অনশনরত ডিআরইউয়ের নারী বিষয়ক সম্পাদক রিতা নাহার বলেন, সারাদেশের গণমাধ্যম কর্মীরা যখন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তখন একজন সাংবাদিককে চোর উপাধি দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আমরা স্পষ্ট বলতে চাই, তথ্য সংগ্রহ কোনো অপরাধ নয়।

শামীমা দোলা বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনিয়ম নিয়ে রোজিনা ইসলামের অন্তত বিশটা রিপোর্ট আছে। তার রিপোর্ট ধরে কোনো আমলার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হলো না, অথচ একটি অচল আইনে রোজিনার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হলো।

সংহতি প্রকাশ করে প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সাজ্জাদ শরিফ বলেন, শুরু থেকে সর্বস্তরের সাংবাদিকরা রোজিনার জন্য রাস্তায় নেমেছেন এবং তার সঙ্গে হওয়া অন্যায়ের প্রতিবাদ করছেন। এজন্য আমরা কৃতজ্ঞ ও আপ্লুত।

প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক বলেন, যে অন্যায় ও হেনস্তা তার সঙ্গে ঘটেছে সেটির ভুক্তভোগী পুরো সাংবাদিক সমাজ। এখানে রোজিনা একটা উপলক্ষ মাত্র। এসব প্রতিবাদ করে রোজিনার মুক্তি শুধু নয় পুরো সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা প্রতিষ্ঠিত করতে এসেছি।