মুরগির পুরুষ বাচ্চা হত্যা জার্মানিতে নিষিদ্ধ

পুরুষ মুরগি ডিম দেয় না৷ অর্থনৈতিকভাবে লাভজনক না হওয়ায় অনেক দেশেই জন্মের পরপরই মোরগ ছানাগুলোকে মেরে ফেলা হয়৷ গণহারে মোরগ ছানা হত্যা বন্ধ করতে আইন পাস হলো জার্মানিতে৷ জার্মান সংসদ বুন্ডেসটাগ ঘোষণা করেছে, জার্মানিতে গণহারে মুরগির পুরুষ বাচ্চা মেরে ফেলা নিষিদ্ধ আইন আগামী ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে৷ মুরগি চাষ প্রক্রিয়া অমানবিক, অনৈতিক বলে দীর্ঘদিন ধরেই নানা সমালোচনা হচ্ছিল৷ পুরুষ মুরগি ডিম দেয় না, মাংসের জন্যও সেরা পছন্দ নয়, ফলে অর্থনৈতিকভাবে লাভজনক না হওয়ায় মুরগির খামারগুলোতে পুরুষ বাচ্চাগুলোকে জন্মের পরপরই হত্যা করা হয়ে থাকে৷

গণহারে মুরগির পুরুষ বাচ্চা হত্যা নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন জার্মানির কৃষিমন্ত্রী ইউলিয়া ক্ল্যোকনার৷ বাচ্চা মোরগ হত্যা করাকে ‘অমানবিক’ ও গ্রহণযোগ্য নয় বলে তিনি মন্তব্য করেন৷ কৃষকদের অর্থনৈতিক স্বার্থে প্রাণী সুরক্ষাকে গুরুত্ব না দেয়ার বিষয়ে ২০১৯ সালে জার্মান প্রশাসনিক আদালত এক রায়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে৷

মুরগির পুরুষ ছানার জন্ম রোধ করতে জার্মান কৃষকদের এখন প্রযুক্তির ব্যবহার করতে হবে, যাতে ভ্রুণেই লিঙ্গ শনাক্ত করা সম্ভব হয়৷ প্রতি বছর শুধু জার্মানিতেই মুরগির প্রায় সাড়ে চার কোটি পুরুষ বাচ্চাকে হত্যা করা হয়৷ প্রাণী সুরক্ষা কর্মকর্তারা একে ‘চিক শ্রেডিং’ বা মুরগির ছানা জবাইবলে অভিহিত করেছেন৷ সূত্র: ডিডাব্লিউ