সর্বশেষ :

নরসিংদীতে অস্ত্রশস্ত্র ও প্রাইভেট কারসহ আন্ত:জেলা ডাকাত দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার ও মায়ের হাতে দুই বছরের শিশু হত্যা

জস্ব প্রতিনিধি :- নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা শাখা ( ডিবি) নরসিংদী সদর উপজেলার মাধবদী থানাধীন উত্তর চৌয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের চার সদস্যকে গ্রেফতার এবং তাদের কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরী এলজি,দুই র্উান্ড গুলি,একটি প্রাইভেট কার,একটি হালকা নীল রংয়ের কাটার, দুইটি চাইনীজ কুড়াল,দুইটি বড় ছোড়া,চারটি চাকু,একটি স্ক্রু ড্রাইভার ও দুইটি শাবল উদ্ধার করেছে। জানা যায়, ২০ মে ২০২১ খ্রি: বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌঁনে দুইটায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবির একটি চৌকস দল ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাধবদী থানার উত্তর চৌয়ার হিজল তলার মোড়ে প্রাইভেটকার সহ ১৪/১৫ জনের এক দল ডাকাত দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে ডাকাতি করার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় তাদের ঘেরাও করে। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল পুলিশের উপর আক্রমন করলে পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা আক্রমণ করে ১৫ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি ছোড়ে এবং আন্ত:জেলা ডাকাত দলের চার সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করে ও বাকিরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে, এরা হলেন ১। রায়পুরা থানার বীরকান্দি উত্তরপাড়া গ্রামের শাজাহান মিয়ার পুত্র মোবারক হোসেন(২৯), ২। পলাশ থানার রামপুর গ্রামের মোঃ আব্দুল মজিদ এর পুত্র শফিকুল ইসলাম(৩৮), ৩। রায়পুরা থানার বাহেরচর মধ্যাপাড়া গ্রামের বিকচান মিয়ার পুত্র ওমর ফারুক(২২) ও ৪। রায়পুরা থানার বাহেরচর পশ্চিমপাড়া গ্রামের মোঃ আফাজ উদ্দিনের পুত্র মাসুদ মোল্লা। এব্যাপারে শুক্রবার দুপুরে নরসিংদী পুলিশ সুপার কার্যালয় প্রাঙ্গনে এক প্রেসব্রিফিংয়ে নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইনামুল হক সাগর জানান, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম ( পিপিএম) এর নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ শাহেদ আহম্মেদ ও পুলিশ পরিদর্শক মোহাম্মদ আবুল বাশার এর নেতৃত্বে এসআই ইলিয়াস হোসেন, এসআই মোহাম্মদ তানভীর মোর্শেদ, এসআই মাহামুদুল হাসান, এসআই মোঃ মাহামুদুল হাসান মারুফ, এসআই মোঃ আমিনুল ইসলাম সংগীয় ফোর্স গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল এই অভিযান পরিচালনা করে। বিফ্রিংকালে তিনি জানান, অভিযানকালে ডাকাতদের হামলায় এস আই আমিনুল ইসলাম আহত হন এবং বাকী ডাকাত সদস্যদের ধরার জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। এব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানায় পুলিশ তিনি। অপরদিকে অপর এক ঘটনায় নরসিংদীতে মায়ের হাতে খুন হলো দুই বছরের শিশু তানহা
ঈদের কেনাকাটা নিয়ে পারিবারিক ঝগড়াকে কেন্দ্র করে নরসিংদীর বানিয়াছল মহল্লায় মুখ ও গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে ২ বছরের শিশুকন্যা সাদিয়া আক্তার তানহাকে নির্মমভাবে হত্যা করে তার পাষন্ড মা কোহিনুর বেগম। উক্ত ঘটনায় নিহত শিশুর মাকে আটক করে পুলিশ। জানা যায়, গত ১৩ মে ২০২১ খ্রিঃ বৃহস্পতিবার আনুমানিক সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে নিহত শিশুর মা কোহিনূর বেগম (২৪) স্বামী :- সোহাগ মিয়া গ্রাম- গইচখালী থানা- নান্দাইল জেলা- ময়মনসিংহ, বর্তমানে বানিয়াছল, থানা ও জেলা – নরসিংদী, স্বামীর সাথে ঈদের কেনাকাটা নিয়ে পারিবারিক ঝগড়াকে কেন্দ্র বানিয়াছলের ভাড়া বাড়িতে শিশু কন্যা সাদিয়া আক্তার তানহা (২) কে মুখ ও গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যার পর নিহত শিশুর লাশ নিয়ে আসামী কোহিনূর তার পিতার বাড়ি আব্দুর রউফ ওরফে রব্বানীর বাড়ি রায়পুরার দড়ি হাইমারা গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যায় এবং পরে সেখান থেকে পালিয়ে যায়। ঐদিনই নিহত শিশুর বাবা মো. সোহাগ মিয়া বাদী হয়ে নরসিংদী মডেল থানায় হাজির হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। নরসিংদী মডেল থানার মামলা নং- ১৫ তারিখ – ১৭/০৫/২০২১ ধারা- ৩০২ পেনাল কোড রুজু করা হয়। মামলা রুজুর পর জেলা পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজিম (পিপিএম) এর নির্দেশনায় নরসিংদী মডেল থানা পুলিশের একটি চৌকস দল মাত্র ১ ঘন্টা অভিযান পরিচালনা করে আসামী কোহিনূর বেগম কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আসামী কোহিনূর বিজ্ঞ আদালতে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারা জবানবন্দি প্রদান করেন। পুলিশের দক্ষতায় দ্রুত সময়ের মধ্যে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট সংগ্রহ করে উক্ত মামলার তদন্ত ৩দিনের মধ্যে সম্পন্ন করে নরসিংদী মডেল থানার অভিযোগ পত্র-২১৮ তারিখ – ২০/০৫/২০২১ পেনাল কোড বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করেন। জেলা সহকারী পুলিশ সুপার এনামুল হক সাগর ( প্রশাসন ও মিডিয়া) তথ্যটি নিশ্চিত করেন।