লেবাননে ইসরায়েলি বাহিনীর গোলাবর্ষণ

লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলে কয়েকটি লক্ষ্যবস্তুতে গোলাবর্ষণ করেছে ইসরায়েল।

বুধবার (১৯ মে) দেশটির সেনাবাহিনীর দাবি ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে লেবানন থেকে চারটি রকেট ছোড়ার জবাবে এই গোলাবর্ষণ করা হয়। তবে এই হামলার সঙ্গে লেবাননের ইরান সমর্থিত গোষ্ঠী জড়িত নয় বলে জানিয়েছে ইসরায়েলের একটি নিরাপত্তা সূত্র।

গত ১০ মে গাজায় ইসরায়েলি হামলা শুরুর পর তৃতীয়বারের মতো লেবানন থেকে ইসরায়েলে চারটি রকেট হামলা চালানো হয়। এর একটি প্রতিহত করে ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। আরেকটি খালি মাঠেন বিস্ফোরিত হয় এবং বাকি দুটি ভূমধ্যসাগরে পড়ে বলে জানিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। রকেট হামলার জেরে ইসরায়েলি শহর হাইফাসহ আশেপাশের এলাকায় বেজে ওঠে সতর্কতামূলক সাইরেন।

লেবাননের নিরাপত্তা সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, ইসরায়েল লক্ষ্য করে চারটি রকেট ছোড়া হয় দক্ষিণাঞ্চলীয় সিদ্দিকিন গ্রাম থেকে। তবে এই রকেট হামলায় ক্ষয়ক্ষতির কথা কোনো পক্ষই জানায়নি।

একটি নিরাপত্তা সূত্র জানিয়েছে, দক্ষিণ লেবাননের নিয়ন্ত্রণে থাকা হিজবুল্লাহ এই রকেট হামলায় যুক্ত নয়। গ্রুপটিও রকেট হামলাকারীদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছে। ইসরায়েলের সামরিক বিষয়ক দূত জানিয়েছেন সম্ভবত গাজায় ফিলিস্তিনিদের সংহতি জানানো কোনও একটি গ্রুপ এসব রকেট হামলা চালিয়েছে।

এর আগে গত সোমবার লেবানন থেকে ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চল লক্ষ্য করে ছয়টি গোলাবর্ষণ করা হয়। তবে সেগুলো সীমান্তের অভ্যন্তরে বিস্ফোরিত হয়। এর পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় গোলা বর্ষণ করে ইসরায়েল। বৃহস্পতিবার লেবানন থেকে ছোড়া তিনটি রকেট ভূমধ্যসাগরে পড়ে।

২০০৬ সালে আধুনিক রকেট থাকা হিজবুল্লাহ গেরিলাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে ইসরায়েল। তারপর থেকে মূলত নীরব রয়েছে এই সীমান্ত। ফিলিস্তিনি ছোট ছোট গোষ্ঠী অতীতেও ইসরায়েলে বিচ্ছিন্নভাবে হামলা চালিয়েছে। সূত্র : রয়টার্স