নওগাঁয় এক ভুয়া চিকিৎসকের জেল ও জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত 

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ
নওগাঁর নিয়ামতপুরে খালিদ বিন মাহবুবুর রহমান নামে এক ভুয়া চিকিৎসককে আটক করেছে সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত।
রবিবার দুপুর ১২টারদিকে নিয়ামতপুর উপজেলার হাজিনগর ইউনিয়নের কুশমইল বেলীর মোড়ে নিজস্ব চেম্বার থেকে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত খালিদ বিন মাহবুবুর রহমান নিলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার হাতিবান্ধা গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে। নিয়ামতপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
জানা যায়, খালিদ বিন মাহবুবুর রহমান নিজেকে ডাক্তার দাবি করলে ভ্রাম্যমান আদালতের টিম সদস্য নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ প্রণব কুমার সাহা চ্যালেঞ্জ করে বিভিন্ন প্রশ্ন করলে তিনি বিভিন্ন রকমের অসংগতিপূর্ণ উত্তর দিতে থাকেন। পরে তার ডাক্তারি ডিগ্রির কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি তা দেখাতে পারেনি।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাৎক্ষনিক ভুয়া ডাক্তার খালিদ বিন মাহবুবুর রহমানকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং ৪০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দু’মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড রায় প্রদান করেন।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার সাংবাদিকদের বলেন, উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে খালিদ বিন মাহবুবুর রহমান এমবিবিএস, পিজিটি, (আপার), (এমডি মেডিসিন) ঢাকা, চিকিৎসক মেডিসিন ও ডায়াবেটিকস সহ বিভিন্ন টাইটেল লিখে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে ডাক্তার সেজে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন। তিনি ঔষুধ কোম্পানীর মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টিটিভ হিসাবে কাজ করতে করতে নিজেকে ডাক্তার হিসাবে প্রচার করেন এবং ভুয়া চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিলেন, এমন তথ্য আমরা জানতে পেরে তাকে আটক করি এবং ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে কারাদন্ড ও অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এসব কাজে আমাকে সার্বিক সহযোগিতা করেন ডাঃ প্রণব কুমার সাহা।