অতিরিক্তি লাভের আশায়  গুদামে খারাপ চাল দেওয়ার চেষ্টা করবেন না—খাদ্যমন্ত্রী

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃবাংলাদেশ সরকারের মাননীয় খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, অতিরিক্তি লাভের আশায় কোন মিল মালিক ভিজিডি, খাদ্যবান্ধব ও রেশনের চাউল ক্রয় করে সেটা আবার পালিশ করে গুডাউনের আনার চেষ্টা করবেন না। আর যদি কেউ চেষ্টা করেন তাহলে আপনাদের সাথে যতই ভালো সম্পর্ক হোক না কেন আমরা সেখানে কঠোর হবো এবং যে গুডাউন এই সব চাল কিনবে সেই গুডাউনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
শনিবার দুপুরে ঢাকার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে নওগাঁসহ সারা দেশে অভ্যন্তরীন বোরো চাল সংগ্রহের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।
এসময় মন্ত্রী বলেন-দুর্নীতি মুক্ত, হয়রানি ও স্বচ্ছ থেকে সারা দেশে কৃষক ও মিলারদের কাছ থেকে ধান চাল ক্রয় করা হচ্ছে এবং আমরা কৃষকদের নায্য মূল্যে নিশ্চিত করে যাচ্ছি। এ বিষয়ে সকল বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা ও জেলা পর্যায়ে খাদ্য কর্মকর্তাদের সভা করে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ধান দিতে এসে কোন কৃষক ও মিলার যেন হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে কঠোর নজরদারি রয়েছে।
খাদ্যমন্ত্রী আরো বলেন, কৃষি অধিদপ্তর থেকে অনেক সময় তালিকা দেরি করে আসায় আমাদের বিপদে পড়তে হয়। যার কারনে আমাদের প্রকোরমেন্ট দেরি হয় এবং প্রকোরমেন্ট দেরি হওয়ার কারনে মিলাররা ধান কিনে রেখে দেয়। সেই কারনে এবার আমরা তাডাতাড়ি ধান ক্রয় শুরু করেছি। এবং কৃষি মন্ত্রনালয় থেকে যদি কোন তালিকা নাও এসে থাকে যে আগে আসবে আগে দিতে পারবে।
নওগাঁয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নওগাঁর জেলা প্রশাসক মোঃ হারুন-অর-রশিদ, আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক জি এম ফারুক হোসেন পাটোয়ারি, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আলমগীর হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মির্জা ইমাম উদ্দিন, নওগাঁ সদর খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম, মহাদেবপুর এলএসডির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম লিটন সহ নওগাঁ জেলা চালকল মালিক গ্রুপের নেতৃবৃন্দ ও মিলাররা উপস্থিত ছিলেন। চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে সদর উপজেলায় সরকারি ভাবে ১৯হাজার ৯২৯ মেট্টিকটন সিদ্ধ চাল ক্রয় করা হবে।