স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে স্কুলের দপ্তরী সহ এক ইউপি মেম্বার আটক 

লেখক: তানিম টিভি
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

 শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রিপোর্টারঃ 
স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে স্কুলের দপ্তরী সহ এক ইউপি মেম্বার কে আটক করেছে পুলিশ।
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার বীরনগর গ্রামে পঞ্চম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে স্কুলের দপ্তরী কাম নৈশ্যপ্রহরী মেহেদী হাসানকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এছাড়া ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে স্থানীয় ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম মামুনকে (৩৫) গ্রেপ্তার করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
গ্রেপ্তারকৃত রাশেদুল ইসলাম মামুন বালিঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য এবং বীরনগর গ্রামের মৃত আমিন উদ্দীনের ছেলে। আর অভিযুক্ত মেহেদী হাসান স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী-কাম নৈশ্যপ্রহরী এবং একই গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে।
মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, গত ১৬ জুন সন্ধ্যায় বীরনগর গ্রামে স্কুলের দপ্তরী-কাম নৈশ্যপ্রহরী মেহেদী হাসানের বাড়িতে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র নিতে যায় ছাত্রীটি। এসময় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ছাত্রীকে পাশের ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে সে। পরে বাড়ি ফিরে বিষয়টি মা-বাবাকে জানায় ভুক্তভোগী ছাত্রী। এদিকে ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হওয়ায় স্থানীয় ইউপি সদস্য রাশেদুল ইসলাম মামুনসহ অনেকজন টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি আপোষ করার জন্য ভুক্তভোগী পরিবারকে চাপ দেয়। এতে তারা রাজি না হয়ে সোমবার রাতে থানায় মামলা করলে অভিযুক্ত মেহেদী ও ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টায় মামুনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পাঁচবিবি থানার ওসি (তদন্ত) গোলাম সারওয়ার প্রতিবেদককে জানান, ধর্ষণের বিষয়টি ইউপি সদস্যসহ কয়েকজন টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছিল। পরে স্কুলছাত্রীর পরিবার থানায় ধর্ষণ মামলা করলে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভুক্তভোগীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে এবং তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। এছাড়াও গ্রেপ্তারকৃতদের মঙ্গলবার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।