ব্যান্ডেজ ব্যবহারে হতে পারে যে রোগ

লেখক: তানিম টিভি
প্রকাশ: ৯ মাস আগে

সামান্য কোথাও কেটে-ছিঁড়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যাগ বা পার্সে থাকা ব্যান্ডেজ লাগিয়ে নেন নিশ্চয়ই! বিশেষ করে রক্তপাত বেশি হলে সেক্ষেত্রে আবার ব্যান্ডেজের পট্টি ব্যবহারের বিকল্প নেই। তুলো দিয়ে রক্ত বন্ধ করে ব্যান্ডেজ বাঁধা প্রাথমিক চিকিৎসা বা ফার্স্ট এইডের মধ্যেই পড়ে।

তবে কখনও কি ভেবে দেখেছেন ব্যান্ডেজ ব্যবহারের ফলেও শরীরে রোগ বাসা বাঁধতে পারে। যদি দোকান থেকে ব্যান্ডেড কেনার সময় কেউ তো আর বেশি কিছু চিন্তা করেন না! তবে জানলে অবাক হবেন, ব্যান্ডেজ থেকেও রোগ হতে পারে।

আর সেই রোগের নাম হলো অ্যালার্জি। ব্যান্ডেজ আধুনিক নানা ব্যান্ডেজে আঁঠালো এক ধরনের পদার্থ থাকে। মূলত সেই আঁঠালো পদার্থ থেকেই অ্যালার্জি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

jagonews24

আঁঠালো ব্যান্ডেডের আঁঠালো টেপগুলো রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে তৈরি। কাটা-ছেঁড়া স্থানে আঁঠালো ব্যান্ডেজ ব্যবহারের তার উপর আবার ত্বকের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত হওয়ার কারণে অনেকের দেহেই অ্যালার্জি হয়। কী করে বুঝবেন ব্যান্ডেডের ফলে ত্বকে অ্যালার্জি হয়েছে-

> লালচে ভাব
> ফুসকুড়ি
> চুলকানি
> শুষ্ক ফাটা ত্বক
> চুলকানোর পর ফোস্কা পড়া ইত্যাদি।

অনেক সময়ই ব্যান্ডেডের রাসায়নিক আঁঠালো পদার্থ বিশেষ কিছু বিষাক্ত পদার্থ দিয়ে তৈরি করা হয়। সেই রাসায়নিকই ত্বকে বিক্রিয়া করে অ্যালার্জি হতে পারে। আবার ব্যান্ডেজ অতিরিক্ত টাইট হলেও অ্যালার্জি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ব্যান্ডেজ  থেকে অ্যালার্জি দেখা দিলে অনেকেই সামান্য কারণ ভেবে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চান না। তবে সামান্য এই অ্যালার্জিই কিন্তু ভবিষ্যতে বড় আকার ধারণ করতে পারে।

যদিও ক্ষত স্থান থেকে ব্যান্ডেড খোলার পর অনেকের এই অ্যালার্জি এমনিতেই সেরে যায়। তবে কিছু রোগীর ক্ষেত্রে এ অ্যালার্জি সহজে সারতে চায় না। সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

যদি দেখেন ব্যান্ডেড ব্যবহারের কারেণে আপনার অ্যালার্জি বেড়ে যাচ্ছে, সেক্ষেত্রে যা করবেন-

>> বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ব্যান্ডেজ খোলার পর বাতাসের সংস্পর্শে আসার পরই অ্যালার্জি ঠিক হয়ে যায়।

>> অ্যান্টিসেপ্টিক ক্রিম লাগালেও অ্যালার্জি সেরে যায়।

>> চুলকানি কমানোর ক্রিম বা লোশন মাখলেও অ্যালার্জি কমে।

>> অ্যালার্জির জায়গায় অ্যালোভেরা জেলও লাগাতে পারেন।

>> জায়গাটি শুষ্ক না রেখে ময়েশ্চরাইজ করুন।

>> অ্যালার্জির ওই স্থানে নখ লাগাবেন না, চুলকালে অ্যালার্জির সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে।

>> অ্যালার্জির স্থানটি যতটা সম্ভব খোলা রাখুন।

>> আঁঠালো ব্যান্ডেজ পরিবর্তে ব্যাবহার করতে পারেন সাধারণ গজ কিংবা পরিষ্কার কাপড়।

>> কাপড়ের পাতলা টুকরো কাঁটা স্থান বেঁধে দিন।

>> কাটা জায়গায় ব্যান্ডেজ পরিবর্তে লাগাতে পারেন স্কিন ব্যারিয়র ফিল্ম এবং হাইপোলারজেনিক টেপ। ব্যবহার করতে পারেন সার্জিকাল বা পেপার টেপও।

>> ব্যান্ডেডের অ্যালার্জি মারাত্মক আকার দেখা দিলে দ্রুত ডাক্তারের কাছে যান।