বীরগঞ্জে জমি নিয়ে সংঘর্ষে গুরুতর আহতরা হাসপাতালে, পাল্টাপাল্টি মামলা

লেখক: তানিম টিভি
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ Bদিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের বীরগঞ্জ পৌরসভার দক্ষিণ সুজালপুর গ্রামে জমি নিয়ে সংঘর্ষে গুরুতর আহতরা হাসপাতালে, মারামারিকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের হয়েছে। বুধবার বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবে এসে মামলার বাদি ক্ষতিগ্রস্ত দক্ষিন সুজালপুরের মৃত আওলাদ সরকারের পুত্র আবু রায়হান সরকার অভিযোগ করে জানান, তাদের প্রতিপক্ষ প্রতিবেশী মৃত আব্বাস সরকারের পুত্র শহিদুল ইসলাম ও তার সন্ত্রাসী ছেলে তোফায়েল আহমেদ সেতুম, আব্দুল্লাহ আল হুসেন নাদিম,আবুল বাসার, সুমন, সোহান সহ ১৪/১৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ চক্র বেআইনী জনতায় দলবদ্ধ হয়ে ২৪ জুন’২১ইং দুপুরে দেশীয় অস্ত্র দা,কুড়াল,লাঠিসোঁটা নিয়ে জমিতে অনধিকার প্রবেশ করে তাদের রোপিত মালটা গাছ উপড়িয়ে ফেলার সময় বাধা দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে ছেলে, ভাই,ভাতিজাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। আহতরা স্থানীয় ও দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মারাত্মক আহত মোজাফ্ফর হোসেনের মাথার ক্ষতস্থানে ১০/১২ টি সেলাই দেয়া হয়েছে।একই ঘটনায় গুরুতর আহত হয় সোলায়মান সরকার, সাবেক ছাত্রনেতা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম সরকার, সাহেব ও গোলাপ সরকার। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, জমি জবর দখলে ব্যপক সন্ত্রাস ও তান্ডব চালিয়েও ক্ষ্যান্ত হয়নি প্রতিপক্ষ, তার সুনামধন্য ছোট ভাই বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী, সমাজ সেবক ও আওয়ামী নেতা সালাম সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্যমুলে, অন্যের প্ররোচনায় কুরুচিপূর্ণ, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্যে প্রনোদিত, ষড়যন্ত্র মুলক, মানহানীকর পোষ্টার ছাপিয়ে রাতের আঁধারে পৌরশহর জুড়ে দেয়ালে দেয়ালে লাগিয়ে ও ফেসবুকসহ অনলাইনে প্রচার করে, যা নিঃসন্দেহে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অপরাধ ও মানহানিকর। এ সংক্রান্ত বিষয়ে বীরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে, যার নং- ৩, তাং ৪ জুলাই ২০২১ইং। এছাড়া অপপ্রচার চালিয়ে মানহানী ঘটানোর অপরাধে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার প্রস্তুুতি চলছে বলেও আবু রায়হান সরকার তার অভিযোগে জানিয়েছেন এবং উল্লেখিত ঘটনায় প্রতিপক্ষ শহিদুল বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে অপর একটি মামলা দায়ের করেছেন যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবী করে জানান। মুঠোফোনে কথা হলে জমি নিয়ে বিবাদে মারপিট, পাল্টাপাল্টি মামলা হওয়ার ঘটনা ও ঘটনাস্থল পরিদর্শনের কথা নিশ্চিত করেন থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল মতিন প্রধান।