বাবার মৃতদেহর পাশে বসে কান্নারত নওগাঁর সেই শিশু মরিয়মকে সহযোগীতা করলেন ডিএমপি কমিশনার

লেখক: তানিম টিভি
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ নওগাঁয় বাবা হাঁরানো ৭ বছর বয়সী অবুঝ শিশু মরিয়মের পাশে সহযোগীতার হাত বাড়ালেন ডিএমপি কমিশনার।
চোখের সামনে বাবার মৃত্যু দেখে অঝোড়ে কাঁদছিলেন অবুঝ ৭ বছর বয়সী শিশু মরিয়ম। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ঘটনা। বাবার মৃতদেহর পাশে বসে শিশু মরিয়মের কান্নার ভিডিও প্রথমে সোস্যাল মিডিয়া ফেসবুক ও পরবর্তীতে বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেই মরিয়মের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন ঢাকা মেট্রো পলিটন পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ শফিকুল ইসলাম বিপিএম বার মহোদয়।
তিনি ব্যক্তিগতভাবে শিশু মরিয়মের পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা আথিক সহায়তা প্রদান করেন। শুক্রবার দুপুরে আর্থিক সহায়তার নগদ টাকা শিশু মরিয়মের কাছে হস্তান্তর করেন নওগাঁর সুযোগ্য ও মানবিক পুলিশ সুপার জনাব প্রকৌশলী মোঃ আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম। এ সময় তিনি ওই পরিবারের সার্বিক খোঁজ খবর নেন।
জেলা পুলিশ সুপার জানান, ডিএমপি কমিশনার মোঃ শফিকুল ইসলাম বিপিএম বার, জেলা পুলিশসহ বিভিন্ন ব্যক্তি শিশু মরিয়মের পরিবারকে আথিক সহায়তা প্রদান করেছেন। আগামীতেও পরিবারটির সহযোগিতায় পাশে থাকবে পুলিশ।
ডিএমপি কমিশনারের আর্থিক সহায়তা হস্তান্তর কালে নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিনয় চন্দ্র সরকার, পোরশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিউল আজমসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, গত ৬ জুলাই নওগাঁর পোরশা উপজেলার কেলোনি পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মুজিবুর রহমান কোভিড-১৯ উপসর্গ নিয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যান। ভর্তির আগেই তার মৃত্যু হয়। এ সময় হাসপাতালের বারান্দায় বাবার মৃতদেহ পাশে বসে কাঁদছিল তার ৭ বছর বয়সী কন্যা শিশু মরিয়ম।