নওগাঁয় পাশাপাশি দুটি গ্রাম থেকে ৭ টি গরু চুরি

লেখক: তানিম টিভি
প্রকাশ: ১ বছর আগে

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, স্টাফ রির্পোটারঃ
নওগাঁয় একই ইউনিয়নের পাশাপাশি দুটি গ্রাম থেকে মাত্র ২ দিনের ব্যবধানে এক গৃহবধূর ইটের তৈরী গোয়াল ঘড়ের দেওয়াল কেটে এবং দু’জন কৃষকের বাড়ির গোয়াল ঘড়ের চাবির ছিটকিনি কেটে মোট ৭ টি গরু চুরি করে নিয়েগেছে অজ্ঞাত চোরের দল। গৃহ পালিত গরুগুলো চুরি যাওয়ায় গৃহবধূ ও কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।
গ্রামবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানাগেছে, নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর ইউনিয়নের শিকারপুর গ্রামের ( মালশিয়া প্রবাসী রুবেল) এর স্ত্রী রিমা বেগম প্রতিদিনের ন্যায় বৃহস্পতিবার ১০ জুন দিনগত সন্ধারাতে তার গৃহপালিত একটি গাভী ও একটি বোকনা বাছুর (ছাই রংয়ের) নিজ বাড়ির ইটের তৈরী গোয়াল ঘড়ে তুলে রেখে রাতের খাবার শেষে গৃহবধূ সহ পরিবারের লোকজন ঘুমিয়ে পড়েন। শুক্রবার সকালে বাড়ির লোকজন ঘুম থেকে জেগেঁ বাড়ির বাহির হতেগিয়ে তাদের দরজায় বাহিরে থেকে ছিটকিনি লাগানো থাকায় বের হতে না পেরে প্রতিবেশীদের উদ্দেশ্যে ডাক-চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে দরজার ছিটকিনি খুলেদেন। এরপর গোয়াল ঘড়ে গিয়ে দাখেন গাভীও বোকনা দুটি গরু-ই গোয়াল ঘড়ে নেই এবং ইটের গোয়াল ঘড়ের দেওয়াল কাটা দেখতে পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন গৃহবধূ। পরিবারের সদস্যরা জানান, ঘটনার রাতে অজ্ঞাত চোরেরা আমাদের দরজায় বাহির থেকে ছিটকিনি লাগিয়ে দেন এবং জানালাদিয়ে সম্ভাব্য এমন কোন দ্রব্য ঘড়ের ভেতর দিয়েছে যার কারনে ঘটনার রাতে আমরা একবার কেউ জাগনা পাইনি জানিয়ে শুক্রবার বিকালেও তাদের থাকার ঘড়ে যে কেউ ঢুকলেই ঘুমের ভাব হচ্ছে বলেও জানানো হয়, চুরি যাওয়া গরু দুটির আনুমানিক মূল্য ৮০ হাজার টাকা বলেও জানানো হয়।
অপরদিকে একই ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী ভীমপুর ( দক্ষিনপাড়া) গ্রামে গত ৮ জুন দিনগত রাতের কোন এক সময় অজ্ঞাত চোরেরা দু’ জন কৃষককের গোয়াল ঘড়ের দরজার ছিটকিনি কেটে ৫ টি গরু চুরি করেন। ঐ গ্রামের দরিদ্র কৃষক নজরুল ইসলাম এর ২ টা গাভী, একটা এ্যাড়া বাছুর ও একটি বোকনা, মোট ৪ টি লাল রংয়ের গরু যার আনুমানিক মূল্য ২ লাখ টাকা ও একই গ্রামের আব্দুর রশিদ নামের এক কৃষকের একটি (৮ মাসের গাভীন) কালো রংয়ের গাভী গরু চুরি করে নিয়ে যায় অজ্ঞাত চোরেরা, যার আনুমানিক মূল্য ৬০ হাজার টাকা বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক।
এব্যাপারে স্থানিয় নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এস আই জিয়াউর রহমান জিয়া কে প্রতিবেদক ঘটনাটি অবগত করে শুক্রবার বিকালে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গৃহবধূর গরু চুরি হয়েছে সেটি আপনার কাছ থেকেই শুনলাম, ঘটনাটি কেউ আমাকে জানায়নি জানিয়ে তিনি আরো বলেন, এরপূর্বে পার্শ্বের গ্রামের দুটি বাড়ি থেকে গরু চুরি হলেও ভুক্তভোগী কৃষকরা কেউ মামলা বা লিখিত অভিযোগ এখনো করেননি, তারপর খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয় এবং এব্যাপারে চোর চক্রের সদস্যদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।