ঢাকারবিবার , ৫ জুন ২০২২
  1. অনান্য
  2. অর্থ ও বাণিজ্য
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. ইসলাম
  7. কিশোরগঞ্জ
  8. কুড়িগ্রাম
  9. কুমিল্লা
  10. কুষ্টিয়া
  11. কৃষি
  12. খোলা কলাম
  13. গাইবান্ধা
  14. গাজীপুর
  15. চাকরি

আল্লাহর হুকুম যথাযথ মেনে চললে যেসব সফলতা ও প্রতিফল

350
Tanim Tv
জুন ৫, ২০২২ ৮:০৯ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

ধর্ম ডেস্ক: দুনিয়ায় মানুষের মূল কাজ নেক আমল করা। নেক আমলের বিনিময়ে মানুষ দুনিয়া ও আখেরাত দুই জগতেই প্রভূত কল্যাণের অধিকারী হয়। মানুষের কর্তব্য- প্রতি মুহূর্তেই আল্লাহর আনুগত্য ও ইবাদত করা। কোরআনে এসেছে, ‘তোমার রবের ইবাদত করতে থাকো, যে পর্যন্ত না মৃত্যু আসে।’ (সুরা হিজর : ৯৯)। আল্লাহ তায়ালা মৃত্যু আসার আগ পর্যন্ত বান্দাকে তার ইবাদত-আমল অব্যাহত রাখতে বলেছেন। যারা আল্লাহর হুকুম যথাযথ মেনে চলবে তাদের দুনিয়া ও আখেরাতের বিভিন্ন সফলতা ও প্রতিফল লাভের কথা আমরা কোরআন ও হাদিসের আলোকে দেখতে পাই। নিচে কয়েকটি সফলতার দিক উল্লেখ করা হলো-

স্রষ্টা ও সৃষ্টির ভালোবাসা : যে মহান আল্লাহর সঙ্গে নেক আমলের মাধ্যমে সম্পর্ক ঠিক রাখে, আল্লাহ তার দুনিয়ার সম্পর্ক ঠিক করে দেন। অর্থাৎ আল্লাহ তায়ালা মানুষের অন্তরে তাঁর ভালোবাসা, হৃদ্যতা এবং তার মর্যাদা ও সুখ্যাতি দুনিয়াতে বৃদ্ধি করে দেন। এ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘যারা বিশ্বাস স্থাপন করে এবং নেক আমল করে, আল্লাহ তায়ালা অবশ্যই তাদের জন্য (মানুষের অন্তরে) ভালোবাসা তৈরি করে দেন।’ (সুরা মারয়াম : ৯৬)। রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘যখন আল্লাহ কোনো বান্দাকে ভালোবাসেন, তখন তিনি জিব্রাইলকে ডেকে বলেন, আল্লাহ অমুক বান্দাকে ভালোবাসেন তাই তুমিও তাকে ভালোবাসো। তখন জিবরাঈল (আ.) তাকে ভালোবাসেন। অতঃপর জিব্রাইল আসমানে ঘোষণা করে দেন যে, আল্লাহ অমুক বান্দাকে ভালোবাসেন তাই তোমরাও তাকে ভালোবাসো। তখন আসমানবাসীরাও তাকে ভালোবাসে। এবং তাঁর ভালোবাসা পৃথিবীবাসীদের মধ্যেও গ্রহণ করা হয়। (অর্থাৎ পৃথিবীবাসীর অন্তরেও তাঁর ভালোবাসা তৈরি করে দেওয়া হয়, যার কারণে পৃথিবীবাসীরাও তাকে ভালোবাসতে থাকে)।’ (বুখারি : ৭৪৮৫)

চিরস্থায়ী জান্নাতের সুখ : মুসলমানের সবচেয়ে বড় সফলতা হচ্ছে, পরকালীন জীবনে চিরস্থায়ী সুখময় জান্নাত লাভ করা। আর আল্লাহ তায়ালা  সঠিক আমলের বিনিময়ে বান্দাকে পরকালীন শাস্তি থেকে মুক্তি দিয়ে আখেরাতে চিরস্থায়ী জান্নাত দান করবেন। বাহ্যিক চেহারা বিবেচনা না করে আল্লাহ তায়ালা সেদিন সঠিক আমলের বিবেচনায় বান্দাকে জান্নাত দান করবে। এতে করে হোক সে নারী অথবা পুরুষ। এ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘যে পুরুষ অথবা নারী ঈমানের সঙ্গে নেক আমল করে তারাই জান্নাতে প্রবেশ করবে। তথায় তাদেরকে বে-হিসাব রিজিক দেওয়া হবে।’ (সুরা মুমিন : ৪০)

সুখী-স্বচ্ছন্দময় জীবন : চিরস্থায়ী সফলতা দেওয়ার পাশাপাশি আমলের বিনিময়ে আল্লাহ তায়ালা বান্দাকে দুনিয়াতেও উত্তম ও সুখী স্বচ্ছন্দময় জীবন দান করেন। আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘যে নেক আমল করে সে পুরুষ হোক কিংবা নারী হোক সে ঈমানদার। আর আমি তাকে (দুনিয়াতে) পবিত্র জীবন দান করব এবং প্রতিদানে তাদেরকে (আখেরাতে) তাদের উত্তম কাজের কারণে প্রাপ্য পুরস্কার দেব যা তারা করত।’ (সুরা নাহল : ৯৭)

বরকতের উন্মুক্ত দরজা : পার্থিব জীবনে চলার পাশাপাশি পরকালীন কঠিন শাস্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার আশায় আল্লাহ তায়ালার ওপর পূর্ণ আস্থা ও ভয়ভীতি রেখে ইবাদত করলে, আল্লাহ তায়ালা বান্দার জন্য আসমানের বরকতের দরজাগুলো খুলে দেন। আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘আর যদি সে জনপদের অধিবাসীরা ঈমান আনত এবং পরহেজগারি অবলম্বন করত, তবে আমি তাদের প্রতি আসমানি ও পার্থিব নেয়ামতসমূহ উন্মুক্ত করে দিতাম।’ (সুরা আরাফ : ৯৬)

পার্থিব দুশ্চিন্তা দূর হয় : যে বান্দা আল্লাহর জন্য হয়ে যায়, আল্লাহ তায়ালাও স্বয়ং তার জন্য হয়ে যান। অর্থাৎ যে ব্যক্তি দুনিয়াবী কাজকর্ম পেছনে ফেলে আল্লাহর গোলামি ও দাসত্বকে নিজের জন্য আবশ্যক করে নেয়, আল্লাহ তায়ালাও তাঁর দুনিয়াবি সব সমস্যা দূর করে দেন। এ সম্পর্কে হাদিসে কুদসিতে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘হে আদম সন্তান! তুমি আমার ইবাদতের জন্য মনোনিবেশ করো, তাহলে আমি তোমার অন্তরকে সচ্ছলতায় ভরে দেব এবং তোমার হাত রিজিক দ্বারা পূর্ণ করে দেব। হে আদম সন্তান! তুমি আমার থেকে দূরে যেও না, (যদি দূরে সরে যাও) তাহলে আমি তোমার অন্তর অভাবে পূর্ণ করে দেব এবং তোমার দুই হাতকে কর্মব্যস্ত করে দেব।’ (মুস্তাদরাক হাকেম : ৭৯২৬)

সম্পদ ও সন্তানে বরকত : গুনাহের কথা স্মরণ করে তওবা-ইস্তেগফার করে আল্লাহর দিকে ফিরে আসলে আল্লাহ তায়ালা তার বিগত জীবনের গুনাহগুলো মাফ করে দেন। শুধু তাই নয়! তওবা-ইস্তেগফারের মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা বান্দার ধন-সম্পদ, সন্তান-সন্তুতিতেও বরকত দান করেন। এ সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেন- ‘তোমরা তোমাদের পালনকর্তার নিকট নিজেদের গুনাহের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা কর। তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল। তোমরা যদি ক্ষমা প্রার্থনা করো, তিনি তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি বাড়িয়ে দেবেন, তোমাদের জন্যে উদ্যান স্থাপন করবেন এবং তোমাদের জন্য নদীনালা প্রবাহিত করবেন।’ (সুরা নূহ : ১০-১২)

আর যারা আল্লাহর বিধানাবলি থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়, তাদের সম্পর্কে আল্লাহ তায়ালা বলেন- ‘যে আমার স্মরণ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে, তার জীবিকা সঙ্কীর্ণ হবে এবং আমি তাকে কেয়ামতের দিন অন্ধ অবস্থায় উত্থিত করব।’ (সুরা তাহা : ১২৪)। সুতরাং দুনিয়া ও আখেরাতে ওই ব্যক্তি সফল, যে তার নিজের জীবনকে গনিমত মনে করে মৃত্যুর পরবর্তী জীবনের জন্য আল্লাহর ইবাদত বন্দেগি করে। পক্ষান্তরে ওই ব্যক্তি নির্বোধ, যে তার জীবনকে নফসের খায়েশাত অনুযায়ী অতিবাহিত করে, অথচ নিজেকে সফলকাম মনে করে।

সাংবাদিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি! তানিম টিভি লি:  এর  সংবাদ সংগ্রহ করার জন্য দেশের কিছু (জেলা ব্যতীত) সকল জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মঠ, সৎ ও সাহসী কিছু পুরুষ ও মহিলা সংবাদদাতা/প্রতিনিধি নিয়োগ করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীরা পূর্ণাঙ্গ জীবন বৃত্তান্ত ই-মেইলে tanimtvltd.news1@gmail.com